60 লক্ষ ফলোয়ার, ইউটিউবের রান্নাঘর খোলা রেখে চোখ বুজলেন ইউটিউব গ্র্যান্ডপা…

73 বছর বয়সী এক বৃদ্ধ তার ক্ষীন কণ্ঠস্বর। এবং তার রুগ্ন চেহারা নিয়ে যখন তিনি ইউটিউব চ্যানেলে এসে নিজের হাতে রান্না করতেন তখন তার আন্তরিকতায় বিশ্বজুড়ে ফলোয়ার্সদের হৃদয় ভরে যেত। সারা বিশ্ব এনাকে ‘গ্র্যান্ডপা’ নামে চিনতেন। তিনি এই নামে এতটাই বিখ্যাত ছিলেন যে তার আসল নাম অনেকেই জানতেন না। 73 বছরের এই গ্র্যান্ডপা বয়স জনিত কারণে রবিবার দিন মারা গেলেন।

তিনি মারা যাওয়ার ফলে অসহায় হয়ে গেলেন অনাথ শিশু গুলি যারা এনার জন্য প্রতি সপ্তাহে সুস্বাদু খাবার পেত। আপনাদের বলে রাখি এই মহান ব্যাক্তিটির আসল নাম ছিল নারায়ণ রেড্ডি। ইনি তেলেঙ্গানার বাসিন্দা ছিলেন। সারাজীবন তিনি চাষবাস করে কাটিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু তিনি দরিদ্রতার মধ্যে জীবনযাপন করলেও তার সব সময় ইচ্ছা ছিল অনাথ শিশুদের জন্য কিছু একটা করার। কিন্তু অর্থের অভাবে তিনি কিছু করতে পারতেন না।

কিন্তু 2017 সালে তার স্বপ্ন পূরণ করার জন্য প্রথম সুযোগ পান। তেলেঙ্গানার কয়েকজন যুবকের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। এবং ইট দিয়ে উনুন বানিয়ে অনাথ আশ্রমের শিশুদের জন্য খাবার তৈরি করা শুরু করেন। এবং তিনি যে সমস্ত যুবকদের সাথে কাজ করতেন তাদের অনুপ্রেরনায় 2017 সালের আগস্ট মাসে ‘গ্র্যান্ডপাজ কিচেন’ নামে একটি ইউটিউব চ্যানেল খুলেন তিনি। আর সেখান থেকেই ওনাকে গ্র্যান্ডপা বলে সারাবিশ্ব চিনতেন।

গর্ত করে তার উপর ইট সাজিয়ে জঙ্গল থেকে কাঠ জোগার করে উনুন ধরানো। এই ভাবেই শুরু হতো গ্র্যান্ডপা রান্নার কাজ। তিনি কখনও কখনও মটন বিরিয়ানি, কখনো চিকেন, পিংজা, কেক, বার্গার, নুডুলস ইত্যাদি সুস্বাদু খাবার বানিয়ে অনাথ আশ্রমের দিয়ে আসতেন। প্রতি সপ্তাহে তিনি অন্তত একবার রান্না করতেন। বড় কড়াই আর হাতা নিয়ে সেই রান্নার পুরো প্রক্রিয়াটি ভিডিও করা হতো এবং সেটি তার ইউটিউব চ্যানেলে আপলোড করা হতো। এছাড়াও তিনি নানান ধরনের পুডিং, কেক, মিল্কশেক, ডিমের নানান রেসিপি বানাতেন। এমনকি কোন দিন তিনি কী খাওয়াতে চলেছেন তা আগে থেকে শিশুদের জানিয়ে দিতেন।

ভিডিওটি শুরু হতো তার ইংলিশে কথাবার্তা দিয়ে এবং ওই পুরো ভিডিওতে তিনি ইংলিশেই কথা বলতেন। 2017 সাল থেকে 2019 সাল পর্যন্ত দু বছরে মোট 220 রকমের রান্না করেছেন তিনি। এই দু বছরে এনার ইউটিউব ফলোয়ার হয় 60 লক্ষ 11 হাজার এবং ফেসবুক তার ফলোয়ার 5 লক্ষ 30 হাজার। এখনো পর্যন্ত এনার জনপ্রিয় রেসিপি হল ফ্রেঞ্চ ফ্রাই। এই রান্নার ভিডিওটিতে মোট 37 কোটি ভিউ হয়েছিল। আর দ্বিতীয় জনপ্রিয় রেসিপি হলো 100 টি ম্যাগি প্যাকেট দিয়ে নুডুলস বানানো।

প্রতিটা ভিডিওতে ভিউয়াররা নিচে কমেন্ট করতেন এবং এমনকি অনেকেই এই কাজের জন্য উনাকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। গত রবিবারে তিনি মারা যান এবং মারা যাওয়ার কয়েক দিন আগেই তিনি ইউটিউবে একটি ভিডিও আপলোড করেন যাতে তিনি তাঁর শারীরিক অবস্থার কথা জানান। এনার মৃত্যুর খবর পাওয়ার পরে গোটা ইউটিউবে শোক বার্তা ঢল নেমেছে। ভক্তরা ইউটিউবে বিদায় জানালেন তাদের জনপ্রিয় ব্যাক্তি গ্র্যান্ডপা কে। এনার মৃত্যুর পর তাঁর সহকর্মীরা জানিয়েছেন এই কাজ বন্ধ হবে না। অনাথ শিশুদের খাওয়ানোর যে স্বপ্ন নারায়ণ দেখেছিলেন তা পূরণ করার কথা জানিয়েছেন তার সহকর্মীরা।

গ্র্যান্ডপা যেখানে রান্না করতেন সেই জায়গাটি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন ঝাঁ-চকচকে না হলেও তিনি যে আন্তরিকতার সঙ্গে অনাথ শিশুদের জন্য রান্না করতেন সেই রান্নার স্বাদ অনাথ শিশুদের কাছে বড় বড় রেস্টুরেন্ট এর কাছেও হার মেনে যায়।

Related Articles

Close