Business Idea: মাত্র ১৫০০০ টাকা দিয়ে আজই শুরু করুন এই ব্যবসা! ৩ মাসেই রোজগার করবেন ৩ লাখ টাকা

করোনাকালে চাকরি হারিয়েছেন বহু মানুষ। নিউ নরমাল লাইফে ফিরে এলেও অনেকের জীবন স্বাভাবিক হতে সময় নিয়েছে অনেক। অন্যের দাসত্ব করার থেকে অনেকেই বেছে নিয়েছেন নিজের ব্যবসার পথ। স্বাধীনভাবে অর্থ উপার্জন করার চিন্তাভাবনা পোষণ করেন এখন অনেকেই। চলুন আজকে আপনাকে এমন একটি ব্যবসার কথা বলব, যেখানে কম খরচে ভালো অর্থ উপার্জন করতে পারবেন আপনি। এই ব্যবসায় শুধুমাত্র একবার ১৫,০০০টাকা বিনিয়োগ করলে আপনি উপার্জন করতে পারবেন প্রায় তিন লক্ষ টাকা পর্যন্ত। শুধু তাই নয়, এই ব্যবসা একবার শুরু করলে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে আপনি সাহায্য পাবেন। তাহলে জেনে নেওয়া যাক কি সেই ব্যবসা। হ্যা, ঠিক ধরেছেন।আমরা তুলসী চাষের ব্যবসার কথা বলছি।

আমরা সকলেই জানি তুলসী গাছ ঔষধি গাছ নামে পরিচিত। আপনি যদি ওষুধি গাছের জন্য কোন খামারের খোঁজ করেন তাহলে সেটি বিনিপয়সায় পেয়ে যাবেন আপনি। এই ধরনের চাষের জন্য আপনার নিজস্ব খামার থাকবে, সেটা প্রয়োজনীয় নয়। আপনি কোন কোম্পানির সঙ্গে চুক্তি করে ঔষধি গাছ চাষ করতে পারেন। এই চাষ শুরু করতে আপনার লাগবে মাত্র কয়েক হাজার টাকা, কিন্তু উপার্জন হবে কয়েক লক্ষ টাকা।

তুলসী গাছের মধ্যে অনেক বিভিন্নতা রয়েছে।এমন অনেক ধরনের তুলসী গাছ রয়েছে যেগুলিতে রয়েছে মিথাইল এবং ইউজেনোল। এই সমস্ত উপাদান ক্যান্সারের মতো মারাত্মক রোগের ওষুধ তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। তুলসী গাছ চাষ করার জন্য সবথেকে বেশি উপযুক্ত বেলে মাটি অথবা দোআঁশ মাটি। জুন-জুলাই মাসে আপনি নার্সারি থেকে বীজ সংগ্রহ করতে পারেন।

এই গাছ লাগানোর সময় আপনাকে একটি কথা মাথায় রাখতে হবে, দুটি লাইনের মধ্যে দূরত্ব থাকবে ৬০ সেন্টিমিটার। একটি চারা গাছ থেকে অন্য চারা গাছের দূরত্ব থাকবে ৩০ সেন্টিমিটার। ১০০ দিন পর ফসল কাটার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যায়। ইতিমধ্যেই পতঞ্জলি, ডাবার এবং বৈদ্যনাথ সংস্থাগুলি তুলসী চাষে চুক্তিভুক্ত চাষ করছে। তুলসীর বীজ এবং তেলের বিশাল বাজার রয়েছে ভারতে।