মাত্র ৯ দিনে সর্দার বল্লভ ভাই প্যাটেলের মূর্তি থেকে আয়ের পরিমাণ শুনলে আপনিও চমকে যাবেন।

আজ আমাদের আলোচ্য বিষয় স্ট্যাচু অফ ইউনিটি নিয়ে। আমাদের দেশের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উদ্যোগে এই কিছুদিন আগেই গুজরাটে সর্দার বল্লভ প্যাটেলের মূর্তি উন্মোচন করা হয়। আপনি হয়তো শুনলে অবাক হবেন বর্তমানে স্ট্যাচু অফ ইউনিটি হল বিশ্বের সবথেকে উচ্চতম মূর্তি। স্ট্যাচু অফ ইউনিটির উচ্চতা হলো ১৮২ মিটার। যেখানে ভারতীয়রা কিছুজন যখন মূর্তি নিয়ে গর্ববোধ করছেন সেখানেই কিছু বিরোধী দল ও নিউজ চ্যানেল এই মূর্তির প্রতিবাদ করেছেন। কংগ্রেস ও বামপন্থীরা মূর্তি নিয়ে কড়া সমালোচনা করেছেন তাদের দাবি সরকারের টাকা এভাবে নষ্ট করা হচ্ছে কেন?স্ট্যাচু অফ ইউনিটি কে নিয়ে এখন যা খবর আসছে তাতে সমালোচনাকারী দলগুলি সবাই নিশ্চুপ হয়ে পড়েছে।

৩১শে নভেম্বর নরেন্দ্র মোদির স্ট্যাচু অফ ইউনিটি উদ্বোধনের পর ১ই নভেম্বর থেকে স্ট্যাচু অফ ইউনিটি দেখার জন্য পর্যটকদের ভিড় জমেছে। ৯ ই নভেম্বর গত শুক্রবার ২৩ হাজার ৬৬৬ জন দর্শকের ভিড় জমেছিল। ১ নভেম্বর থেকে ৯ নভেম্বর মোট ৭৪ হাজারেরও বেশি সংখ্যক পর্যটকের ভীড় দেখা দেয়।আপনি শুনলে হয়তো অবাক হয়ে যাবেন, এই মাত্র কয়েক দিনের মধ্যেই হাজার হাজার পর্যটক এর ভীড়ে দরুন কেন্দ্র সরকারের ১ কোটি ৭৬ লক্ষ ৮৪ হাজার টাকার আমদানি হয়েছে। লক্ষ্য করার বিষয়টি হলো স্ট্যাচু অফ ইউনিটি দেখার জন্য দিন দিন ভীড়ের সংখ্যা বেড়েই চলেছে বিদেশি পর্যটক এর প্রচুর পরিমাণে আগমন ও হচ্ছে। গত রবিবার ৪ই নভেম্বর প্রায় ১৯ লক্ষের বেশি টাকার টিকিট বিক্রি হয়েছে।যেখানে বলা হচ্ছে মূর্তি দেখতে প্রত্যেক জনের খরচা হচ্ছে ৩৮০ টাকা করে । ৩৫০ টাকা প্রতি ব্যক্তির প্রবেশ মূল্য, এবং ৩০ টাকা হচ্ছে পার্কিং মূল্য।

পর্যটক বিশেষজ্ঞদের দাবি খুব তাড়াতাড়ি সরকার ১ কোটি টাকা রাজস্ব আমদানি করতে পারবে। তবে বিশেষ মরশুমে এর আমদানির পরিমাণ ৩ কোটি পর্যন্ত পৌঁছে যাবে বলে অনুমান করা হচ্ছে।কেন্দ্র সরকারের তরফ থেকে দাবি উঠেছে স্ট্যাচু অফ ইউনিটি নির্মাণের পর থেকে রাজ্যে চাকরির সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে এবং ভবিষ্যতে আরও চাকরির ভ্যাকেন্সি বাড়বে কারণ স্ট্যাচু অব ইউনিটির কাছাকাছি তৈরি হবে এয়ারপোর্ট স্টেশন ও নানারকম পরিষেবা। সরকার ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণে বিশেষভাবে নজর রাখছে। কেন্দ্র সরকারের এখন এটাই প্রধান লক্ষ্য যে কিভাবে বেশি সংখ্যক পর্যটক কে আনা যায় এবং রাজকোষ কে ভর্তি করে তোলা যায়। মূর্তি উন্মোচনেরস সময় যেসব দলগুলি সমালোচনা করেছিল তাদের মধ্যে এখন নিশ্চুপের ছায়া পড়ে গেছে।

Related Articles

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

Close