ভুলে যান চাকরি করার টেনশন! বাড়িতে বসেই আজই শুরু করুন এই ব্যবসা, সরকারও করবে সাহায্য

আজ আপনাদের এমন একটি ব্যবসার কথা বলতে যাচ্ছি যেখানে কম খরচে আপনি মোটা টাকা আয়ের সুযোগ পেয়ে যাবেন। অনেকেই ব্যবসা করতে ভয় পান কারণ ব্যবসা করতে গেলে একটি মোটা টাকা বিনিয়োগ করার পর ক্ষতি হয়ে গেলে সেই টাকা ফেরত পাওয়া যায় না। কিন্তু আপনি যদি কম অর্থ বিনিয়োগ করেন তাহলে আপনার টাকা নষ্ট হবার কোন চিন্তা ভাবনা থাকে না। আজ আপনাকে বলব মৌমাছি পালন ব্যবসা সম্পর্কে বিস্তারিত। এই ব্যবসা শুরু করতে কেন্দ্রীয় সরকারও আর্থিক ভাবে সাহায্য করছে ব্যবসায়ীদের। একইসঙ্গে দেশে এবং বিদেশের চাহিদা অনেক বেশি।

ওষুধ থেকে শুরু করে খাদ্য পণ্য, মৌমাছি পালনে কৃষি এবং উদ্যানজাত উৎপাদন বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে প্রচুর। অনেক রাজ্যে কৃষকরা ঐতিহ্যবাহী চাষাবাদ ছেড়ে দিয়ে মৌমাছি পালন শুরু করেছেন। এই ব্যবসা থেকে শুধুমাত্র অর্থ উপার্জন হয় তা নয়, এই ব্যবসা কৃষি এবং উদ্যান জাতীয় উৎপাদন বৃদ্ধির সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। মৌমাছি পালন এবং মধু প্রক্রিয়াকরণ ইউনিট স্থাপন করলে প্রক্রিয়াজাতকরণ প্ল্যান্টের সহায়তায় মৌমাছি পালনের বাজারে সফলতা পাওয়া যায়।

এই প্রকল্পের উদ্দেশ্য হলো, মৌমাছি পালনের উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি করা, প্রশিক্ষণ পরিচালনা করা, সচেতনতা ছড়িয়ে দেওয়া, মৌমাছি পালনের ক্ষেত্র বিকাশ করা। ন্যাশনাল বি বোর্ডের সহায়তায় ভারত মৌমাছি পালনের জন্য আর্থিক সহায়তার পরিকল্পনা নিয়েছেন। যিনি ব্যবসায়ী তাকে সরকার ৮০ থেকে ৮৫ শতাংশ ভর্তুকি দিয়ে থাকবেন।

এই ব্যবসা শুরু করতে গেলে আপনি দশটি বাক্স নিয়ে মৌমাছি পালন করতে পারেন। প্রতি বাক্সে যদি ৪০ কেজি মধু পাওয়া যায় তাহলে মোট মধুর পরিমাণ হবে ৪০০ কেজি। প্রতি কেজি ৩৫০ টাকা দরে বিক্রি করলে আপনি পেয়ে যাবেন ১.৪০ লক্ষ টাকা। প্রতি বাক্সের দাম যদি ৩৫০০ টাকা হয় তাহলে আপনার মোট খরচ হবে প্রায় ৩০ হাজার টাকা। এতকিছুর পরে আপনি লাভ করতে পারবেন ১.৫ হাজার টাকার।

মৌমাছির সংখ্যা বৃদ্ধির সাথে সাথে এই ব্যবসায় তিনগুণ বৃদ্ধি পাবে অর্থাৎ দশটি বাক্স নিয়ে শুরু করা এই ব্যবসা আপনি খুব তাড়াতাড়ি ১০০ টি বাক্সে পরিণত করে ফেলতে পারবেন। ১০০ টি বাক্স মৌমাছি পালন করলে আপনি দিনের শেষে লাভ করতে পারবেন প্রায় ১০ লাখ ১৫ হাজার টাকা।