আপনি কী জানেন প্রতিদিন শুধু জল খেয়েই কমাতে পারবেন ১ কেজি ওজন, জানুন পদ্ধতি

স্থূলতা সর্বদা আমাদের বিভিন্ন সমস্যায় ফেলে দেয়। স্থূলতার জন্য আমাদের অনেক রোগের সম্মুখীন হতে হয় অনেক সময় যা একেবারেই কাম্য নয়। তাই অতিরিক্ত ওজন কমানোর জন্য অনেকে যান ডায়েটিশিয়ানের কাছে আবার অনেকে নিয়মিত এক্সেসাইজ করে নিজের অতিরিক্ত ওজন কমানোর চেষ্টা করে থাকেন। ডায়েটিশিয়ান অথবা ট্রেনারদের কথা মেনে হয়তো অনেক সময় ওজন কমে যায় কিন্তু সম্প্রতি একটি গবেষণায় দাবি করা হয়েছে শুধুমাত্র জল খেলেই নাকি কমে যায় অনেকটাই ওজন।

চিকিৎসকরা এই পদ্ধতিকে বলছেন ওয়াটার ফাস্টিং। কিভাবে কতটা জল খেয়ে আপনার ওজন কমে যাবে বা কতক্ষণ আপনাকে কতখানি জল খেয়ে থাকতে হবে চলুন জেনে নেওয়া যাক। প্রথমেই জানতে হবে ওয়াটার ফাস্টিং ব্যাপারটা কি? ওয়াটার ফাস্টিং হল শুধুই জল খেয়ে থাকা। এই সময় আপনি জল ছাড়া অন্য কিছু খাবার খেলে চলবে না। শুধুমাত্র জল খেয়ে থাকলে আপনার পেটের চর্বিও ঝরবে, কমে যাবে বাড়তি ওজন।

বিভিন্ন পুষ্টিবিদদের কথায়, ওয়াটার ফাস্টিং মেনে চলতে হবে কঠোর ভাবে। কোনরকম অনিয়ম করলে চলবে না। ২৪ ঘন্টা থেকে ৭৪ ঘন্টা পর্যন্ত এই ওয়াটার ফাস্টিং করতে হবে আপনাকে। তবে বেশি সময় ধরে এই বাটারফ্লাস্টিং করলে চলবে না তাতে শরীর খারাপ হতে পারে।

গত বছর ইউএস ন্যাশনাল লাইব্রেরী অফ মেডিসিনের তরফ থেকে একটি সমীক্ষা চালানো হয় যেখানে ১২ জন মধ্য বয়সী পুরুষকে চারদিন শুধু জল খেয়ে থাকতে বলা হয়। চারদিন পর দেখা গেছে, অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে মানসিক চাপ সৃষ্টি হয়েছে, ফলে ওজন কমে গেছে অনেকটাই। তবে শুধুমাত্র জল খেয়ে থাকার ফলে ডিহাইড্রেশন, কেটোজেনেসিস বৃদ্ধি, হাইপারুরিসেমিয়া, সিরাম গ্লুকোজ ঘনত্ব হ্রাসের মতো সমস্যা দেখা গিয়েছিল।

গবেষণাতে দেখা গেছে, শুধুমাত্র জল খেয়ে থাকলে পেশী ক্ষয়, রক্তচাপ ওঠানামা এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যের সমস্যা দেখা দিতে পারে। তবে ডায়াবেটিসে আক্রান্ত, গর্ভবতী মহিলা অথবা শিশুদের ক্ষেত্রে এই ফাস্টিং না করাই ভালো। আপনি যদি সুস্থ এবং সবল থাকেন তাহলে অবশ্যই এই পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন। এই পদ্ধতি অবলম্বন করলে প্রতিদিন ১ কেজি পর্যন্ত ওজন কমানো সম্ভব হয়। তবে ২৪ থেকে ৭২ ঘণ্টা পর্যন্ত শুধুমাত্র জল খেয়ে থাকতে হবে তাই আগেভাগে সিদ্ধান্তটা ভেবেচিন্তে নেবেন।