রাতারাতি ভাইরাল হয়েছিল গান মিলেছিল খ্যাতি, তবে সব শেষ! অর্থ অভাবে ভুগছে মানিকে মাগে হিতে খ্যাত গায়িকা

সোশ্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্ম, যে কোন মানুষকে নিমেষে শূন্যে তুলে দিতে পারে আবার যে কোন মানুষকে নিমেষে মাটিতে মিশিয়ে দিতে পারে। আমরা যারা সোশ্যাল মিডিয়া ইউজার, তারা শুধুমাত্র সময় কাটানোর জন্য যে কোন মানুষকে রাতারাতি ভাইরাল করে দিতে পারি। কিন্তু দুঃখের বিষয় কিছুদিন সেই মানুষটি সোশ্যাল মিডিয়ায় ঘোরাফেরা করলেও অদূর ভবিষ্যতে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরে যেতে হয় তাকে বা তাদের। কিন্তু এই সরে যাওয়াটা অনেকেই মেনে নিতে পারে না।

কখনো কি ভেবে দেখেছেন, সোশ্যাল মিডিয়া থেকে যে সমস্ত মানুষ রাতারাতি ভাইরাল হয়ে যান, সেই সমস্ত কন্টেন ক্রিয়েটাররা যখন সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সরে দাঁড়ান, তখন ঠিক কি অবস্থা হয়ে যায় তাদের? আজ কথা বলব রাতারাতি ভাইরাল হয়ে যাওয়া এক গায়িকার একটি পদক্ষেপ নিয়ে কিছু কথা। বেশ কিছু মাস আগে মানিগে মাগে হিতে, গানটি ব্যাপক আকারে সোশ্যাল-মিডিয়ায়-ভাইরাল হয়েছিল।

শ্রীলংকান এক গায়িকা রাতারাতি ভাইরাল হয়ে গিয়েছিলেন এই গানের মাধ্যমে। গায়িকার নাম ইয়োহানি। গানটি সোশ্যাল মিডিয়ায় রিলিজ যাওয়ার পর আসমুদ্রহিমাচল জুড়ে সকলের মুখে মুখে শোনা গিয়েছিল এই গান। এই গানের মাধ্যমে শুধুমাত্র গায়িকা নয়, শ্রীলংকার জনপ্রিয় র‌্যাপার সথীশন রথনায়কাও রাতারাতি জনপ্রিয় হয়ে গিয়েছিলেন। গোটা বিশ্ববাসীর মনে জায়গা করে নিয়ে রাতারাতি অর্থ অর্জন করেছিলেন তিনি। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো এই শ্রীলংকান গায়িকা এবার নেট মাধ্যমের কাছে অর্থ সাহায্য চাইলেন।

এটাই হলো সবথেকে বড় দুঃখের ঘটনা। এক সময় যে গায়িকা সারা পৃথিবী জুড়ে রাজত্ব করছিলেন, সেই গায়িকা আজ আর্থিকভাবে ভীষণভাবে দৈন্যদশার মধ্যে রয়েছেন। কিন্তু এই অর্থসাহায্য তিনি নিজের জন্য চাইছেন না, বরং এই অর্থসাহায্য চাইছেন তিনি তাঁর নিজের দেশ শ্রীলংকার জন্য।শ্রীলংকার অবস্থা যে খুব খারাপ তা আলাদা করে বলার কিছু নেই। অর্থনৈতিক মন্দা কার্যত আকাশ ছুঁয়েছে। এই কঠিন পরিস্থিতিতে বিশ্ববাসীর কাছে সাহায্যের হাত পাতলেন এই ভাইরাল নায়িকা। শ্রীলংকার পাশে দাঁড়ানোর জন্য তিনি অনুরোধ করলেন। গো ফান্ড মি, নামে একটি তহবিল তৈরি করেছেন তিনি যেখানে অর্থ সংগ্রহ করার পরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন এই শ্রীলঙ্কান গায়িকা।

ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে এই বার্তা আপলোড করেন জনপ্রিয় গায়িকা। গণমাধ্যমের কাছে আবেদন জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা আশা করছি বিশ্বের যেকোন জায়গা থেকে আমার সংগীতের ভক্তরা, আমার পাশে দাঁড়ানোর জন্য প্রস্তুত থাকবেন। শ্রীলংকা বর্তমানে অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে রয়েছে। আমরা সকলে যদি হাতে হাত মিলিয়ে কাজ করি তাহলে অবশ্যই শ্রীলংকার এই আর্থিক অনটন দূর করা যাবে।প্রসঙ্গত, এই পদক্ষেপ যে নিজের দেশের জন্য তিনি নিয়েছেন তা বেশ বোঝাই যাচ্ছে এই বার্তা থেকে। অনেকেই এই পদক্ষেপের জন্য সাহসিকতার এবং মানসিকতার বাহবা দিয়েছেন। অনেকে পাশে দাঁড়ানোর জন্য রাজিও হয়েছেন।