ভারতের সমর্থনে নামল বিশ্বের সুপার পাওয়ার দেশ গুলি! একঘরে সাম্রাজ্যবাদী চীন..

আমরা সবাই জানি চীন আগের থেকে ভারতের সাথে বিবাদ বাড়িয়েছে। কিন্তু চীন এ কথা ভাবতে পারিনি যে আজকে বিশ্বের সমস্ত শক্তিশালী দেশগুলো ভারতকে সমর্থন করবে। মহা শক্তিধর দেশগুলো ভারতকে সমর্থন করায় বর্তমানে চীন সমস্যার মুখে পড়েছে। গালওয়ান উপত্যকায় চীনের সেনারা ভারতীয় সেনাদের নৃশংস ভাবে হত্যা করার পর চীন ও ভারতের মধ্যে দ্বন্দ্ব চরমে উঠে। এই ঘটনার পর আমেরিকা, ফ্রান্স সহ আরো শক্তিশালী দেশ গুলি ভারতের পক্ষ নিয়েছে।

যেহেতু সমস্ত শক্তিশালী দেশ গুলি ভারতের সমর্থন রয়েছে তাই স্বাভাবিক ভাবেই চীন ভয় পেয়ে গেছে। ইতিমধ্যেই ফ্রান্স জুলাই মাসের মধ্যেই ভারতকে রাফাল বিমান পাঠাবে। যার ফলে ভারতের সামরিক শক্তি এক অন্য পর্যায়ে চলে যাবে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এছাড়াও আপনাদের জানিয়ে দিই ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রী ভারতের প্রতিরক্ষা মন্ত্রী অমিত শাহ কে একটি চিঠি লিখেন। এই চিঠিতে তিনি জানিয়েছেন, ফ্রান্সের সেনারা সব সময় ভারতীয় সেনাদের সাথে রয়েছে। ভারত এবং ফ্রান্সের বন্ধুত্ব কেমন রয়েছে তা স্পষ্টভাবে বোঝা যায় রাফেল চুক্তি তে।


রাফেল এর মতোন শক্তিশালী যুদ্ধবিমান ভারতকে দিতে রাজি হয়ে গেছে ফ্রান্স। ফ্রান্সের সাথে ভারতের ভালো সম্পর্ক না থাকলে এটা কোনদিন সম্ভব হতো না।ভারতের সাথে চীনের এই বিবাদের সময় ফ্রান্স যে ভারতকে রাফেল বিমান পাঠাচ্ছে তার ফলে স্পষ্টভাবে বোঝা যাচ্ছে যে চীন এবং ভারতের মধ্যে এই বিবাদে ভারতের সমর্থন রয়েছে ফ্রান্স। সম্প্রতি ফ্রান্সের প্রতিরক্ষামন্ত্রী গালওয়ান উপত্যকায় বলিদান দেওয়া ভারতীয় সেনাদের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়েছেন।

এছাড়াও শক্তিধর দেশগুলির মধ্যে আমেরিকা রয়েছে যারা সম্পূর্ণ ভারতের সমর্থন করছে। চীনের সাথে আমেরিকার বিবাদ অনেকদিন ধরে লেগে রয়েছে।করোনা ভাইরাস সংক্রমনের পেছনে চীনের হাত রয়েছে বলে এর আগে অনেকবার দাবি জানিয়েছে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এমন কী গোটা এশিয়াতে আমেরিকান সেনা মোতায়েন করার মতন গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছে আমেরিকা। ফলে এই সিদ্ধান্তের পর চীনের রাতের ঘুম উড়ে গেছে তা বলা যেতেই পারে।

রাশিয়া এবং জাপানের মতো দেশগুলো ভারতের সমর্থন রয়েছে। সম্প্রতি কয়েকদিন আগেই চীন-রাশিয়া কে বলেছিল যে তারা যেন ভারতকে অস্ত্রশস্ত্র সরবরাহ না করে। কিন্তু চীনের এই প্রস্তাব কে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে রাশিয়া সম্পূর্ণ ভারতের সমর্থন রয়েছে। বর্তমানে রাশিয়া এখন ভারতকে অস্ত্রশস্ত্র সরবরাহ করছে। এতদিন ধরে চীন তাদের আশেপাশে দেশগুলো থেকে জমি জোর করে কেড়ে নিত। যেহেতু চীন শক্তিশালী দেশ তাই বাকি দেশগুলো সেরকম ভাবে কিছুই করতে পারতো না। কিন্তু এখন পরিস্থিতি সম্পূর্ণ আলাদা। সমস্ত শক্তিধর দেশগুলো চীনের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে।

চীনের এই দুঃসাহস কে একেবারে শেষ করে দেওয়ার জন্য সমস্ত দেশগুলি এক হয়েছে। তাছাড়াও এবারে চীনের প্রতিপক্ষ ভারত। ইতিমধ্যেই ভারত চীনকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছে যে ভারতের জমির দিকে তাকালে কড়া জবাব দেওয়া হবে। ভারত আগের থেকে কাউকে উস্কানি দেয় না, কিন্তু ভারতকে যদি কেউ উস্কানি দেয় তাহলে ভারত তাকে কড়া জবাব দেবে।

Related Articles

Back to top button