এবার ভারতে তৈরি হচ্ছে বিশ্বের প্রথম হাইটেক ক্রিকেট স্টেডিয়াম, বৃষ্টিতেও হবে না ম্যাচ বাতিল..

এবার বিশ্বের প্রথম হাইটেক ক্রিকেট স্টেডিয়াম তৈরি হতে চলেছে ভারতে এই ক্রিকেট স্টেডিয়ামে যে বিশেষ সুযোগ-সুবিধা থাকবে তা বিশ্বের আর কোনো ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আপাতত নেই। এর আগে বিশ্বের সবচেয়ে বড় ক্রিকেট স্টেডিয়াম তৈরি করা হয়েছিল ভারতে। তবে এবার যে স্টেডিয়ামটি তৈরি করা হচ্ছে ভারতে সেটি আধুনিক প্রযুক্তির স্টেডিয়াম। আর এখানে যে আধুনিক পদ্ধতিতে ব্যবহার করা হবে সেখানে এবার থেকে বৃষ্টি হলেও ম্যাচ বন্ধ হবে না।

সাধারণত যেমনটা আমরা দেখে থাকি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের ছাদ থাকে না তবে এবার ভারতে যে হাইটেক স্টেডিয়ামটি তৈরি করা হবে সেটি চণ্ডীগড়ের নির্মীয়মাণ এই হাইটেক স্টেডিয়ামটির মধ্যে, আর এতে থাকবে বৃষ্টির হাত থেকে ম্যাচকে বাঁচানোর যাবতীয় ব্যবস্থা। শুধু তাই নয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামের মধ্যে থাকবে বহু আত্তাধুনিক ব্যবস্থা। আর এই যে স্টেডিয়ামটি তৈরি করা হচ্ছে সেটি গ্রিন বিল্ডিংস কনসেপ্ট অনুযায়ী তৈরি করা। প্রায় আট লাখ স্কয়ার ফিট জায়গা জুড়ে তৈরি করা হচ্ছে এই হাইটেক ক্রিকেট স্টেডিয়ামটি আর এই স্টেডিয়ামটি তৈরি করতে খরচ হচ্ছে প্রায় দেড়শো কোটি টাকা।

প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পারা গেছে এই ক্রিকেট স্টেডিয়াম টি ভারতের মোহালি স্টেডিয়াম এর থেকে তিনগুণ বড় হতে চলেছে। আর এই স্টেডিয়ামটির মধ্যে যেকোনো প্রতিকূল পরিস্থিতিতে ম্যাচ আয়োজন করা সম্ভব হবে। শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে দর্শকরাও বৃষ্টি, রোদের হাত থেকে বাঁচতে পারবেন। তাছাড়া এই স্টেডিয়ামের মধ্যেই থাকবে রেন ওয়াটার হারভেস্টিং সিস্টেম। এর মাধ্যমে বৃষ্টির জল ধরে রেখে তা আবার পুনর্ব্যবহার করা যাবে। এর পাশাপাশি এই পুরো স্টেডিয়ামের ইলেকট্রিসিটি চলবে সৌর বিদ্যুতের মাধ্যমে। তার পাশাপাশি গোটা স্টেডিয়ামের বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে লাগানো হবে গাছ- গাছালি, যাতে প্রকৃতিক শোভা বোঝায় থাকে। অর্থাৎ এক্ষেত্রে এই স্টেডিয়ামে বৃষ্টির জন্য কোনো ভাবেই কোনো ম্যাচ বাতিল হয়ে যাবে না।

এই স্টেডিয়ামের ড্রেনেজ সিস্টেম এতটাই ভালো থাকবে যে বৃষ্টি থামার আধঘন্টার মধ্যেই খেলা আবার পুনরায় শুরু করা যাবে।তাছাড়া বৃষ্টি চলাকালীন পিকআউট ফিল্ডের কোনরকম ক্ষতি হবে না এক্ষেত্রে। আর এই যে হাইটেক স্টেডিয়ামটি তৈরি করা হচ্ছে সেটি দর্শকদের সুখ-স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রেখেই তৈরি করা হচ্ছে। তবে কখন এই স্টেডিয়ামের নির্মাণকাজ পুরোপুরি ভাবে সম্পন্ন হবে তা এখনো জানানো হয়নি।ইতিমধ্যে এই স্টেডিয়াম তৈরির কাজ শুরু হয়ে গেছে এবং কাজ অনেকটাই এগিয়ে গেছে তবে এক্ষেত্রে বলা যেতে পারে যেহেতু এই স্টেডিয়ামটির মধ্যে থাকবে অত্যাধুনিক ব্যবস্থা সেহেতু এই স্টেডিয়ামের নির্মাণকাজ শেষ হতে যে বেশি সময় লাগবে তা বলাই বাহুল্য।

Related Articles

Close