ধারা 370 বিলুপ্তির পর আর্টিক্যাল 371 নিয়ে বড় ঘোষণা দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের..

দিল্লি সংসদে গত 5 ই আগস্ট কাশ্মীর থেকে 370 ধারা তুলে নেওয়ার প্রস্তাব তিনি জানিয়েছিলেন। হ্যাঁ আপনারা ঠিকই ধরেছেন তিনি দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। আর তার এই প্রস্তুতিকে ঘিরে শোরগোল চালু হয়ে যায় গোটা দেশে। অবশেষে সাংসদে দুই পক্ষের এই প্রস্তাব মেনেই 2019 সালের 15 ই আগস্ট এক রকম অন্য সূর্য উদয় দেখলো এবারের কাশ্মীর। তবে এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেটি অসমকে নিয়ে যেমন কি আপনারা জানেন গত দুইদিনের সফরে অসম গিয়েছেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

সেখানে এনআরসি চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশের পর প্রথম প্রতিক্রিয়া দিলেন তিনি। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন দেশের মাটিতে অনুপ্রবেশকারীদের কোন জায়গা নেই। উল্লেখ্য এই নাগরিকপঞ্জী চূড়ান্ত তালিকা থেকে আপাতত বাদ পড়েছেন 19 লক্ষেরও বেশি মানুষ।নাগরিকত্ব প্রমাণের জন্য ফরেনার ট্রাইবুন্যালে 120 দিনের মধ্যে আবেদন করতে হবে তাদের। আর সেখানে যদি নাগরিকত্ব প্রমাণ পেতে ব্যর্থ হয় তারা তাহলে তারা হাইকোর্ট , সুপ্রিমকোর্ট ও আর্জি জানাতে পারেন এই বিষয়ে।

এইদিন অমিত শাহ জানিয়ে দেন সংবিধানে 371 অনুচ্ছেদের দরুন উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে বিশেষ সুবিধা দেওয়া হয়েছে। তবে সরকারের তরফ থেকে 371 অনুচ্ছেদ কে সম্মান করা হয়।যখন থেকে জম্মু কাশ্মীর থেকে অনুচ্ছেদ 370 প্রত্যাহার করা হয়েছে তখন থেকে এমন আশঙ্কা উঠতে শুরু হয়েছিল এই উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলির মধ্যে।তবে আপনাদের বলে রাখি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী পদে নিয়োগ হওয়ার পর এই প্রথম বার অসম গেলেন অমিত শাহ।

এর আগে বিজেপির প্রধান হিসেবে একাধিকবার তিনি অসমের বিদেশি অনুপ্রবেশ কারীদের নিয়ে তোপ ও দেগেছিলেন।আর একবার তো লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে গিয়ে তিনি বিদেশীদের উইপোকার সঙ্গেও তুলনা করেন। এই দিন তিনি নর্থ ইস্ট কাউন্সিল থেকে দাবি করে বলেন যে কাশ্মীরের 370 ধারা লাগুছিল তাতে কোন নিয়মাবলী লাগু ছিল না তবে উত্তর-পূর্ব ভারতের জন্য যে 371 ধারার বিশেষ নিয়মাবলী লাগু রয়েছে।তাই এই দুটির মধ্যে বিস্তর ফারাক রয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

এদিন অসমে গিয়ে গুহাটি এক সভায় যোগ দিয়ে তিনি বলেন আমি সংসদে স্পষ্ট করে দিয়েছি এটা হবে না, এদিন তিনি আরো বলেন উত্তর-পূর্ব ভারতের আটজন মুখ্যমন্ত্রীর সামনে দাঁড়িয়ে বলছি যে কেন্দ্র কোনদিন উত্তরবঙ্গ থেকে 371 ধারা তুলবে না।এই দিন অমিত সাহ বলেন যে কাশ্মীর থেকে 370 ধারা তুলে নেওয়ার পর থেকে একটা চেষ্টা অনবরত চালানো হচ্ছিল উত্তর-পূর্ব ভারতের মানুষকে ভুল তথ্য দেওয়া হচ্ছিল তাদেরকে ভীত করা হচ্ছিল 371 ধারা নিয়ে, চেষ্টা চালানো হচ্ছিল একটা আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি করার। তবে এইদিন তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন এসব ভুল তথ্য।আর এখান থেকে 371 ধারা তুলে নেওয়া হবে না এই ব্যাপারে তারা নিশ্চিন্ত হতে পারে।

Related Articles

Close