বিয়ে করা বউ কারো সম্পত্তি নয়, ঐতিহাসিক রায় বম্বে হাইকোর্টের

বিয়ের পর বাড়ির সব কাজকর্ম করা, বাড়ির  সকলের ফাইফরমাশ খাটা, বাড়ির সবার সেবা করার দায়  শুধুমাত্র স্ত্রী’র  এমনটা ভাবার দিন এবার শেষ৷ স্ত্রী কখনোই স্বামীর সম্পত্তি হতে পারেনা। বিবাহ শুধুমাত্র বন্ধন, জীবনের অংশ মাত্র,  এর জেরে কেউ কারো সম্পত্তি হতে পারেনা। সাত বছর পুরানো একটি খুনের মামলার রায়দান করতে গিয়ে বোম্বে হাইকোর্টের বিচারপতি রেবতী মোহিত দেরের এজলাসের সিঙ্গেল বেঞ্চ এই রায় শোনাল।

 

উল্লেখ্য, ২০১৩ সালে এক গৃহবধূ খুনের মামলায় এই শুনানি ও রায় শোনাল বম্বে হাইকোর্টের সিঙ্গেল বেঞ্চ। মহারাষ্ট্রের সোলাপুরের বাসিন্দা সন্তোষ  সকালে উঠে চা না পাওয়ায় তার স্ত্রী মনীষাকে কুড়ুল দিয়ে কুপিয়ে খুন করেছিল সাত বছর আগে।  খুনের প্রমাণ লোপাট করার জন্য খুনি সন্তোষ রক্তের দাগ মুছে স্নান করে নেয়।  পুরো ঘটনার সাক্ষী ছিল তার  একমাত্র মেয়ে যার বয়স ৬৷ সে পরবর্তীকালে আদালতেও সাক্ষী দেয়। এই খুনের মামলায় প্রথমে সন্তোষ অতকরকে ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়৷ নিম্ন আদালতের এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করে অভিযুক্ত সন্তোষ বম্বে হাইকোর্টের দ্বারস্থ হয়। কিন্তু বিচারপতি রেবতী মোহিত দেরে নিম্ন আদালতের রায়কেই বহাল রাখেন।

Jio-র দুর্দান্ত অফারে বাজিমাত!একদম বিনামূল্যে মিলছে 2 বছর আনলিমিটেড ডেটা-ভয়েস কলের সুবিধা

মামলার রায়দানের পূর্বে বম্বে হাইকোর্ট জানিয়েছে, “চা করার নির্দেশ না করায় স্ত্রীকে খুন করা যায়না”। যদিও  সন্তোষ অতকর জানায়, “স্ত্রী চা বানিয়ে দেবেনা, এই কথা শুনে আমার মাথায় রাগ উঠে যায় এবং তার জেরেই আমি খুন করি”। এই কথা শুনে বিচারপতি বলেন, “স্ত্রীকে স্বামীর সম্পত্তি ভাবার মধ্যযুগীয় ধারণা এখনও রয়ে গিয়েছে। স্বামীর ইচ্ছা অনুসারে স্ত্রী কাজ করবেন, এই চিন্তা এখনও অধিকাংশের মাথার ঘুরে বেড়ায়। এটা পিতৃতান্ত্রিক ধারণা ছাড়া কিছু নয়৷”