Shirt Buttons: কী কারণে মেয়েদের শার্টের বোতাম বামদিক ও ছেলেদের হয় ডানদিকে! জানুন এর পেছনের আসল রহস্য

বর্তমানে পোশাক নিয়ে কোন ছুত্ মার্গ কাজ করে না কারোর মধ্যে। পুরুষদের পোশাক অনায়াসে পড়ে ফেলছে মহিলারা আবার অন্যদিকে পুরুষরা শাড়ি পড়ে অবলীলায় বেরিয়ে পড়ছে পথে। কিন্তু অনেক যুগ আগেই এমন নিয়ম ছিল না। তখন পোশাকের ধরন এবং স্টাইল এখনকার থেকে অনেকটাই আলাদা ছিল। জেন্ডার অনুযায়ী তৈরি হতে পোশাক। পুরুষরা একরকম পোশাক পড়তেন এবং নারীরা পড়তেন অন্যরকম পোশাক।

তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে পুরুষ এবং মহিলা নির্বিশেষে নিজেদের পোশাক নিয়ে নানান এক্সপেরিমেন্ট করে থাকেন। তবে একটি জিনিস অনেক সময় আমরা লক্ষ্য করেছি যে মহিলাদের শার্টের বোতাম থেকে বাঁদিকে এবং পুরুষদের শার্টের বোতাম তাকে ডান দিকে। এর পেছনে হয়তো কোন বাস্তব সম্মত কারণ নেই কিন্তু ১৮৫০ সাল থেকে নানান থিওরি প্রচলিত রয়েছে এই বোতামের পেছনে।

মহিলারা নিজে নিজে পোশাক পড়তেন না: উচ্চবিত্ত মহিলাদের সাজিয়ে দেওয়ার জন্য এবং পোশাক পরিয়ে দেওয়ার জন্য অতীতে লোক নিয়োগ করা হতো। মহিলারা কখনোই নিজে নিজে জামা কাপড় পড়তেন না। পরিচারিকাদের পোশাক পরাতে সুবিধার্থে মহিলাদের শার্টের বাঁদিকে বোতাম দেওয়া হতো। পরিচারিকারা যাতে ডান হাত দিয়ে তাড়াতাড়ি বোতাম লাগিয়ে দিতে পারেন তার জন্য বাম দিকে বোতাম তৈরি করা হত মহিলাদের।

পুরুষদের অস্ত্র বের করতে সুবিধা হত: অনেকে বিশ্বাস করেন পুরুষদের পোশাকে ডানদিকে বোতাম থাকার অন্যতম কারণ হলো ডান হাত দিয়ে তাড়াতাড়ি অস্ত্র বের করতে সুবিধা হতো। পোশাকের ডান দিকের বোতাম তাড়াতাড়ি ডান হাত দিয়ে খুলে হাত ঢুকিয়ে লুকানো অস্ত্র বের করে আনতে পারতেন প্রাচীনকালে রাজারা। এটি অন্যতম কারণ হলেও পোশাকের ডান দিকে বোতাম থাকার।

ঘোড়ায় বসতেন মহিলারা: প্রাচীনকালে যখন পুরুষরা ঘোড়ায় চড়তেন তখন মহিলা সংগীরা পুরুষদের পিছনে বসতেন। হঠাৎ করে দমকা হাওয়ায় যাতে বোতাম খুলে না যায় সেদিকে লক্ষ্য রেখে উল্টো দিকে বোতাম লাগানো হতো মহিলাদের জামায়।

নেপোলিয়ান তত্ত্ব: ফরাসি সম্রাট নেপোলিয়নের বিখ্যাত পোজ নাকি এর জন্য দায়ী। নেপোলিয়নের একটি পোজে দেখা যায় তিনি ওয়েস্ট কোর্টের মধ্যে হাত ঢুকিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছেন। এর জন্য অনেক ফরাসি মহিলারা নেপোলিয়নকে নিয়ে হাসাহাসি করতেন। অনেক সময় সমালোচনা করা হতো নেপোলিয়ানকে নিয়ে। ঠিক এই কারণে নেপোলিয়ান মহিলাদের জন্য টি শার্ট অর্ডার করেন যার বোতাম পুরুষদের শার্টের ঠিক উল্টোদিকে লাগানো হতো। ওই ভাবেই পোশাক পরতে হতো মহিলাদের যাতে মহিলারা কখনোই হাসাহাসি অথবা কটাক্ষ না করতে পারেন নেপোলিয়নকে দেখে।

ধনী ব্যক্তিদের দেখে নকল করা: অনেকে এমন কথাও বলেন বোতামের দাম অনেক বেশি থাকার কারণে প্রাচীনকালে দামি বোতাম কেনা সবার পক্ষে সম্ভব ছিল না। ধনী মহিলারা এক ধরনের পোশাকে বোতাম ব্যবহার করতেন, তুলনামূলক আর্থিকভাবে দুর্বল মানুষ ধনী ব্যক্তিদের দেখে নকল করে একই রকম পোশাক পড়ার চেষ্টা করতেন এবং পড়তেন।