কেন তৃণমূলের বিধায়ক-মন্ত্রীদের গ্রেফতার করল CBI, লাইভে এসে বিস্ফোরক তত্ত্ব পেশ দেবাংশুর

সোমবার সকাল থেকেই আমরা দেখছি রাজ্য রাজনীতিতে তুমুল হইচই এর সৃষ্টি হয়েছে। নারদ কান্ডের জন্য ফিরহাদ হাকিম সহ তৃণমূলের আরও তিন নেতা মন্ত্রীকে সকালে গ্রেফতার করার জন্য প্রবল অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। তৃণমূলের তরফ থেকে দাবি করা হচ্ছে যে ওই একই অপরাধ করে শুভেন্দু অধিকারী এবং মুকুল রায় মুক্ত রয়েছে কেন?

 

বিজেপির তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে সিবিআই আদালতের নির্দেশ মত কাজ করছে। তৃণমূলের ওই নেতাদের বিরুদ্ধে যথেষ্ট প্রমাণ রয়েছে তাই তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে মত প্রকাশ করেছে বিজেপি দল। তৃণমূলের তরফ থেকে বিজেপির এই যুক্তিকে মেনে নেওয়া সম্ভব হয়নি।তৃণমূলের এক নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য তাঁর ফেসবুক লাইভে এসে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীদের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি হওয়া নিয়ে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলেছেন।

দেবাংশু ভট্টাচার্য বলেছেন সিবিআই ফিরহাদ হাকিম,সুব্রত মুখোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করেছে। কিন্তু ওই একই অপরাধে যুক্ত থাকা শুভেন্দু অধিকারী এবং মুকুল রায়কে সিবিআই গ্রেপ্তার করেনি। এর কারণ হল মুকুল রায় বিজেপির সর্ব ভারতীয় সহ-সভাপতি আর শুভেন্দু অধিকারী হলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা। এই কারণেই এদের গ্রেফতার করা হয়নি।

এর পাশাপাশি দেবাংশু ভট্টাচার্য বলেন ভারতবর্ষে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ ভয়াবহ রূপ ধারণ করেছে। উত্তর প্রদেশ থেকে বিভিন্ন মৃত দেহ গঙ্গায় ভেসে আসছে, অক্সিজেনের কারণে মানুষ ছটপট করে মারা যাচ্ছে। মৃতদেহের স্থান নেই শ্মশানে।

কেন্দ্রীয় সরকারের এই ব্যর্থতাকে আড়াল করার জন্য সিবিআইকে দিয়ে তৃণমূলের নেতা মন্ত্রীদের গ্রেফতার করানো হয়েছে। যাতে আগামী ৭ দিন আঞ্চলিক এবং জাতীয় মিডিয়াগুলো এই কাণ্ডকে নিয়েই ব্যস্ত হয়ে পড়ে। আর এরই মাঝে সাধারণ মানুষের চোখে কেন্দ্রীয় সরকারের ওই ব্যর্থতাগুলো প্রকাশ না পায়।