বাংলার সিংহাসন কার? ভোট ঘোষণার পরেই বেরিয়ে এলো জনমত সমীক্ষার পরিসংখ্যান, যা দেখে আপনিও

২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচন দরজায় কড়া নাড়ছে৷ দিনক্ষণ ঘোষণা হয়ে গিয়েছে বাংলার ভোটের। আর ঠিক এক মাস বাকি ভোটের৷  জনমত সমীক্ষায় সমীক্ষক সংস্থা সি ভোটার জানিয়ে দিল বাংলার নির্বাচনের রায়ের পূর্বাভাস। বাংলার সিংহাসন কার তার আভাস মিলেছে সি ভোটারের সমীক্ষায়।

সমীক্ষা বলছে, বাংলায় টানা তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসতে চলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জয়ের হ্যাটট্রিক হতে চলেছে৷  তবে তৃণমূল কংগ্রেসের প্রাপ্ত আসন সংখ্যা এবার অনেক কমবে। ২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে তৃণমূল ১৪৮ থেকে ১৬৪টি আসন পেতে পারে৷

তৃণমূল

অন্যদিকে তৃণমূলকে হারাতে না পারলেও প্রধান বিরোধী দল হিসেবে বিজেপি নিজের আসন পাতবে৷ সমীক্ষা অনুযায়ী ৯২ থেকে ১০৮টি আসন পেতে পারে তারা। গতবারের তুলনায় অনেকটাই বেশি  আসন সংখ্যা৷ তবে ম্যাজিক ফিগার ছুঁতে পারবে না বিজেপি।

বাম
বাম-কংগ্রেস জোট এবার নেমে যাবে তৃতীয় স্থানে। বাংলায় নির্বাচনী লড়াইয়ে জোটবদ্ধ হয়ে  কোনওরকমে অস্তিত্ব বাঁচাতে সমর্থ হবে।  বাম ও কংগ্রেস জোট পেতে পারে ৩১ থেকে ৩৯টি আসন। যা গতবারের তুলনায় অনেক কম। তবে লোকসভা নির্বাচনের তুলনায় অনেক ভালো ফলাফল।

এবার বাংলায় নতুন দল হিসেবে আব্বাস সিদ্দিকির ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট গঠিত হয়েছে । আসাদউদ্দিন ওয়েইসির মিমের সঙ্গে জোট করেছে  ইতিমধ্যেই।  যদিও সিদ্দিকি-ওয়েইসির এই জোট এবং অন্যান্যরা অবশ্য তেমন দাগ কাটতে পারবে না। তারা পেতে পারে ১ থেকে ৫টি আসন।

২০১৬-র বিধানসভা নির্বাচনে ২৯৪ আসন এর মধ্যে  পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেস পেয়েছিল ২১১টি আসন,  বিজেপি পেয়েছিল মাত্র ৩টি আসন। আর বাম-কংগ্রেস জোট পেয়েছিল ৭৭টি আসন।। বিপুল আসনে জিতে সেবারও ক্ষমতায় এসেছিল তৃণমূল কংগ্রেস।

পর্দার ছবি বাস্তবেও, স্বামীর মতোই নীলকে জড়িয়ে ‘পাওরি’তে মাতলেন গুনগুন

আর ২০১৯-এর লোকসভা ৪২-এ ৪২ করার লক্ষ্যমাত্রা ছিল তৃণমূল এর৷ বিধানসভা আসনের ১৬৪টিতে এগিয়ে ছিল তৃণমূল। আর বিজেপির লোকসভা আসন সংখ্যা ২ থেকে বেড়ে ১৮ হয়েছিল৷ বিধানসভায় ১২১টি আসনে এগিয়েছিল। বাম-কংগ্রেস এগিয়েছিল মাত্র ৯টি আসনে।

সি ভোটারের প্রথম পর্যায়ের সমীক্ষায়  তৃণমূল  ১৫৪ থেকে ১৬২টি আসন পাবে জানা গেছিল। সিএনএক্স বলেছিল তৃণমূল পাবে ১৪৬ থেক ১৫৬টি। সি ভোটারের দ্বিতীয় পর্যায়ের  তৃণমূল  ১৪৮ থেকে ১৬৪টি আসন পাবে জানা গেছিল।  সি ভোটার প্রথম পর্যায়ের সমীক্ষা অনুযায়ী বিজেপি  ৯৮ থেকে ১০৬টি আসন পেতে পারে । কিন্তু  সিএনএক্স বলছে ১১৩ থেকে ১২১টি। সি ভোটারের দ্বিতীয় পর্যায়ের সমীক্ষা অনুযায়ী বিজেপি  ৯২ থেকে ১০৮টি আসন পেতে পারে।

সি ভোটার প্রথম পর্যায়ে  বলেছিল বাম-কংগ্রেস পাবে ২৬ থেকে ৩৪টি, সিএনএক্স বলছে ২০ থেকে ২৮টি। সি ভোটারের দ্বিতীয় পর্যায়ে সমীক্ষা বলেছিল বাম-কংগ্রেস পাবে ৩১ থেকে ৩৯টি, অন্যান্যরা পেতে পারে ২ থেকে ৬টি আসন। সিএনএক্স বলছে ১ থেকে ৩টি পাবে অন্যান্যরা।সি ভোটারের দ্বিতীয় পর্যায় বলছে, অন্যান্যরা পেতে পারে ১ থেকে ৫টি আসন।