কারা পাবেন জয়বাংলা পেনশন স্কিমের সুবিধা! আবেদনের জন্য কী কী লাগবে নথিপত্র, জানুন বিস্তারিত

পশ্চিমবঙ্গে বসবাসকারী অর্থনৈতিক ভাবে পিছিয়ে পরা তপশিলি জাতি এবং উপজাতি সম্প্রদায়ের মানুষদের কিছুটা অর্থনৈতিক ভাবে সাহায্য করার জন্য ইতিমধ্যেই রাজ্যে চালু হয়েছে নতুন একটি পেনশন স্কিম যার নাম “জয় বাংলা পেনশন স্কিম”। এই স্কিমের সুযোগ-সুবিধা পাবেন বিশেষভাবে সক্ষম রাজ্যবাসীও, অর্থাৎ সমাজের প্রান্তিক শ্রেণীর মানুষদের আর্থিক নিরাপত্তা দেবার ক্ষেত্রে এই স্ক্রিম ভীষণভাবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে।

রাজ্যের বহু পরিবার এই প্রকল্পের ফলে উপকৃত হবে বলে মনে করা হচ্ছে। এবার চলুন জেনে নেওয়া যাক ঠিক কোন কোন মানুষ এই প্রকল্পের সুযোগ-সুবিধা পাবেন? এই প্রকল্পে কি কি সুযোগ সুবিধা পাবেন? এই প্রকল্প কোন কোন পেনশনের অন্তর্ভুক্ত রয়েছে? জয়বাংলা পেনশন স্কিমের অধীনে মোট তিনটি স্কিম অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এগুলি হল তপশিলি বন্ধু, মানবিক এবং জয় জোহার।

এই স্কিমের অধীনে কারা পাবে পেনশন? এই প্রকল্পের সুযোগ-সুবিধা পেতে গেলে পশ্চিমবঙ্গের বাসিন্দা হতে হবে আবেদনকারীকে। বয়স হতে হবে ৬০ বছর অথবা তার বেশি। জয় জোহার অথবা তপশিলি বন্ধু প্রকল্পের সুযোগ-সুবিধা পেতে গেলে আবেদনকারীকে অনগ্রসর শ্রেণীর অন্তর্ভুক্ত হতে হবে। আবেদনকারীর নাম বিপিএল তালিকায় থাকা বাধ্যতামূলক হতে হবে। একই সঙ্গে অন্য কোন পেনশন স্কিমের সুযোগ সুবিধা পাওয়া কোন ব্যক্তি এই স্কিমের অন্তর্ভুক্ত হতে পারবেন না।

এই পেনশন প্রকল্পের জন্য আপনি অফলাইনে আবেদন করতে পারবেন। প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ২১ লক্ষ মানুষ সুযোগ-সুবিধা পাবেন। বিধবা অথবা বিশেষভাবে সক্ষম মানুষরা এই প্রকল্পের আবেদন করতে পারবেন। জয় জোহার প্রকল্পের মাধ্যমে যদি আপনি আপনার নাম নথিভুক্ত করেন তাহলে প্রতি মাসে পেয়ে যাবেন ১ হাজার টাকা। তপশিলি বন্ধু প্রকল্পের অধীনে নাম নথিভুক্ত করে প্রতিমাসে পাবেন ৬০০ টাকা।

টাকা সরাসরি পেনশন প্রাপকদের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেওয়া হবে। আবেদন করার পর আবেদন পত্র এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট যাচাই করে নেওয়া হবে সরকারের তরফ থেকে। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে তবেই অ্যাকাউন্টে টাকা জমা পড়বে। আবেদনপত্রের সঙ্গে জমা দিতে হবে পাসপোর্ট সাইজের ফটো, রেশন কার্ডের ফটোকপি, জাতি শংসাপত্রের ফটোকপি, ভোটার আইডি কার্ডের ফটোকপি, আধার কার্ডের ফটোকপি, নিজের সই করা ইনকাম সার্টিফিকেটের ফটোকপি, নিজের সহ রেসিডেন্সিয়াল সার্টিফিকেটের ফটোকপি, ব্যাংকের পাসবুকের প্রথম পাতার ফটোকপি। প্রসঙ্গত, আপনি অনলাইনেও আবেদন সংক্রান্ত সমস্ত বিষয় জেনে নিতে পারেন। অফিসিয়াল ওয়েবসাইটটি হল, https://jaibangla.wb.gov.in/login.