কবে শেষ হবে ভারতে করোনার তৃতীয় তরঙ্গ, বড়সড় বয়ান দিলেন কানপুরের অধ্যাপক মনিন্দ্র আগরওয়াল

এর মধ্যেই তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়েছে আমাদের পশ্চিমবঙ্গ সহ ভারতবর্ষে। কিন্তু এবার আমাদের মনে প্রশ্ন জাগছে, দ্বিতীয় তরঙ্গের মতো কি তৃতীয় তরঙ্গ একইভাবে আমাদের জীবনে ক্ষতিগ্রস্ত প্রমাণিত হবে কি? ইতিমধ্যে বিভিন্ন গবেষণা করা হচ্ছে যাতে তৃতীয় তরঙ্গ কতদিন স্থায়ী থাকবে সেই বিষয়ে আমরা অবগত হতে পারি।

কানপুরের অধ্যাপক মনিন্দ্র আগারওয়াল অনুমান করেছেন, চলতি বছরের মার্চ মাসে মোটামুটি শেষ হয়ে যাবে করোনার তৃতীয় তরঙ্গ। তিনি মহামারী অধ্যায়নের জন্য ডিজাইন করা ভারত সরকারের ফর্মুলা মডেলের প্রধান। করোনার তৃতীয় তরঙ্গ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “এই তৃতীয় তরঙ্গ আর কিছুদিনের মধ্যেই ভারতে দুর্বল হয়ে যাবে এবং মার্চের মাঝামাঝি শেষ হয়ে যাবে। তবে তাঁর মধ্যে চার থেকে আট লক্ষ মানুষ আক্রান্ত হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আগামী তিন-চার দিনের মধ্যে এই বিষয়ে একটি ধারণা স্পষ্ট হয়ে যাবে সকলের কাছে”।

প্রসঙ্গত, করোনার থার্ড ওয়েভের শীর্ষে রয়েছে দিল্লি এবং মুম্বাই। প্রতিদিন এই দুই রাজ্য থেকে প্রায় ৫০ থেকে ৬০ হাজার আক্রান্তের কথা শুনতে পাওয়া যাচ্ছে। তবে এইভাবে যদি আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যায় তাহলে অদূর ভবিষ্যতে লকডাউন হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। আক্রান্তের সংখ্যা লাগাম দিতে গেলে লকডাউন ছাড়া আর অন্য কোন উপায় নেই রাজ্য সরকারের কাছে।

লকডাউন প্রসঙ্গে মনিন্দ্র আগারওয়াল বলেছেন, “একটি কঠোর লকডাউন সর্বদা আমাদের সাহায্য করতে পারে। তবে অনেক লোকের জীবিকা নির্বাহের পক্ষে এই লকডাউন ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত প্রমাণিত হয়। কিন্তু লকডাউনকে শেষ অবলম্বন হিসেবে আমাদের দেখা উচিত। তার আগে আমাদের উচিত আরো বেশি সচেতন হয়ে থাকা। আমরা সচেতন হয়ে থাকলে লকডাউন এড়িয়ে চলতে পারব আমরা। অসুস্থ বয়স্ক এবং শিশুকে যতটা সম্ভব বাড়িতে রাখার চেষ্টা করতে হবে। মাক্স এবং স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে ব্যাপক আকারে”।