লাল সিং চাড্ডা-র ব্যর্থতার জেরে সত্যিই কী ভারত ছাড়বেন আমির, আগামী জীবন কাটাবেন এই দেশে?

একজন অভিনেতা তার চলচ্চিত্রের জন্য কঠোর পরিশ্রম করেন, তবে এখন তার অভিনীত সিনেমাগুলো দর্শক পছন্দ করেন না, তাই রুপালি পর্দায় কাজ হচ্ছে না। একটি সিনেমার জন্য প্রযোজক, পরিচালক, অন্যান্য অভিনেতারা তাদের সময় এবং শ্রম দেন। যখন একটি ফিল্ম ফ্লপ হয়, তখন সেই ফিল্মের সাথে যুক্ত থাকেন যারা, তারা জানেন তাদের হৃদয় কি অনুভব করছে।

সম্ভবত ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার পুরো টিম এবং প্রধান অভিনেতা আমির খানও একই রকম অনুভব করছেন। আমিরের এই সিনেমাটি অভিনেতাদের দ্বারা প্রশংসিত হলেও বয়কট প্রবণতার কারণে সিনেমাটি সফল হতে পারেনি। এদিকে আমিরকে নিয়ে বেরিয়ে আসছে একটি বড় খবর। অভিনেতা আমির খান দীর্ঘ বিরতি নিচ্ছেন বলে খবর শোনা যাচ্ছে। প্রায় ২ মাসের জন্য ভারত থেকে আমেরিকা যাচ্ছেন তিনি।

‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমাটি ২০২২ সালের অন্যতম বড় সিনেমা। অনেকদিন ধরেই এই সিনেমাটি নিয়ে আলোচনা চলছিল। বহুদিন পর রুপালি পর্দায় দেখা যায় আমিরকে। ভক্তরাও তাঁকে দেখতে মরিয়া হয়ে উঠেছিলেন। রক্ষাবন্ধন ও স্বাধীনতা দিবসের ছুটির বিশেষ দিনে মুক্তি পাওয়া সিনেমাটির উৎসবের কারণে প্রেক্ষাগৃহে বিপুল সংখ্যক দর্শকের সমাগম আশা করা হলেও তেমন কিছুই হয়নি।

আমির খানের সিনেমা ‘লাল সিং চাড্ডা’ প্রথম সপ্তাহান্তে প্রায় ৪৫.৮৩ কোটি টাকা আয় করেছে। ১৮০ কোটি টাকার ব্যয়ে নির্মিত সিনেমাটি বিশাল ক্ষতির সম্মুখীন হয়। মিডিয়া রিপোর্ট অনুযায়ী, দুই মাসের জন্য আমেরিকা যাচ্ছেন আমির খান। তিনি গত ৩ বছর ধরে অদ্বৈত চন্দন পরিচালিত আসন্ন চলচ্চিত্রের সাথে পুরোপুরি জড়িত বলে জানা গেছে। তাই পরবর্তী প্রকল্পে কাজ করার আগে কিছুক্ষণ বিশ্রাম নিতে চান তিনি। বলা হচ্ছে যে, ‘লাল সিং চাড্ডা’ সিনেমার অভিনয় নিয়ে আমির খান হতাশ। তাই দীর্ঘ সময় পর আগামী কয়েক সপ্তাহ বিশ্রাম নিতে হবে তাঁকে। বলা হচ্ছে যে, এই বিরতির পর আমির খান তাঁর পরের সিনেমার জন্য প্রস্তুতি শুরু করবেন।