রাজ্য সরকারের দারুন পদক্ষেপ,এবার ফোনের মাধ্যমে মিলবে চিকিৎসা পরিসেবা,জেনে নিন ফোন নাম্বার গুলি

দেশজুড়ে লকডাউন পালন করায় করোনা সংক্রমণ কিছুটা হলেও রোধ করা সম্ভব হয়েছিল। তবে পরের পর্বে যখন লকডাউন খুলে দেওয়া হয় আর দেশজুড়ে শুরু করা হয় আনলক পর্ব তখন থেকে আবার এই করোনা সংক্রমণ হু হু করে বাড়তে থাকে দেশজুড়ে, কোনভাবেই তাকে রোখা সম্ভব হচ্ছে না। যদিও এক্ষেত্রে দিন দিন যেভাবে করোনা সংক্রমণের হার বাড়ছে তার বর্তমান পরিস্থিতি মাথায় রেখেই বাড়ানো হচ্ছে হাসপাতালের সংখ্যা ও বেডের সংখ্যাও। তবে এই করোনা ভাইরাসের জেরে অন্যান্য যেসব রোগীরা রয়েছেন তারা হাসপাতাল যেতে ভয় পাচ্ছেন।

আর এই করোনা সংক্রমণের জেরে অনেক রোগী সমস্যায় পড়ছেন এক্ষেত্রে। আর এবার সেই সমস্যার সমাধান করতেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এক সমাধান নিয়ে হাজির হয়েছেন এখানে তিনি জানিয়েছেন টেলিমেডিসিনের মাধ্যমে বাড়িতেই চিকিৎসা করার উপায়। অর্থাৎ রাজ্যের এই নতুন পরিকল্পনার মাধ্যমে এবার থেকে বাড়িতে বসেই এক ফোনের মাধ্যমে মিলবে চিকিৎসার সুবিধা। এখন প্রশ্ন কোন নম্বরে ফোন করে মিলবে এই সুবিধা এবং কোন কোন ডাক্তার এক্ষেত্রে উপলব্ধ রয়েছেন পরিষেবা প্রদান করার জন্য।

রাজ্য সরকারের তরফ থেকে ইতিমধ্যে তারও তালিকা ইতিমধ্যে প্রকাশ করে দেওয়া হয়েছে… যে নম্বর গুলিতে ফোন করলে সকাল 9 টা থেকে রাত্রি 9 টা পর্যন্ত মিলবে এই পরিষেবা সেগুলি হল নিম্নরূপ-

• ডাঃ কল্যাণ রাজন মুখোপাধ্যায়- 9432122080
• ডাঃ শৈবাল বন্দ্যোপাধ্যায়- 8910066336
• ডাঃ বিপা বসু- 987132266
• ডাঃ নিত্যগোপাল ওঝা- 9433413921
• ডঃ পাপরী নায়েক- 9831602396
• ডঃ সুবীর কীর্তনীয়া -9933415124
• ডাঃ অমিতাভ সরকার-9831503366
• ডাঃ বীরেন্দ্র প্রসাদ সাউ-9434183891
• ডাঃ উমা শঙ্কর দলুই-9433124114
• ডাঃ তমা ঘোষ-983041723
• ডাঃ সরস্বতী বরুই-8777568552
• ডাঃ মিতালী অধিকারী-94349442534
• ডাঃ গোপা রায়-824003080
• ডাঃ সুব্রত দালাল-9836108710
• ডাঃ রুনা ভট্টাচার্য-9836488657

অন্যদিকে যে সকল ডাক্তারের রাত্রি 9 টা থেকে সকাল 9টা পর্যন্ত এই পরিষেবা প্রদান করবেন তাদের নাম এবং নম্বর গুলি নিম্নরূপ-

• ডাঃ তমাল ঘোষ-9681669561
• ডাঃ শান্তনু বিশ্বাস-9762086603
• ডাঃ শ্রীবাস রায়-9836883362
• ডাঃ স্বরূপ সাধু-7003150460
• ডাঃ শভাকত আলি খান-9475686430
• ডাঃ দীপেন্দ্রনাথ দাস-9051625431

প্রসঙ্গত, এর আগেই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছিলেন, “করোনা এবং অন্যান্য রোগের ক্ষেত্রে টেলিমেডিসিন চালু করবো। লকডাউনের নিয়ম বিধি চলায় অনেকই ডাক্তারদের চেম্বারে যেতে পারছেন না। তাঁদের পরামর্শ নিতে পারছেন না। তাই এই পরিষেবা শুরুর কথা ভেবেছি।