ভাইরাসের জেরে ভিন্ন রাজ্যে আটকে পড়া বাংলার শ্রমিকদের সাহায্যের জন্য 18 টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠি মমতার…

গোটা দেশজুড়ে লকডাউন হওয়ার পর দেশের বিভিন্ন রাজ্যে বাংলার বহু শ্রমিক আটকে পড়েছে। সমস্ত যানবাহন বন্ধ থাকায় তারা নিজেদের বাড়িতে ফিরতে পারছেন না। সেই সমস্ত শ্রমিকদের যাতে কোন অসুবিধা না হয় তার জন্য 18 টি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে চিঠি লিখলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগামী 21 দিন তাদের খাবার, নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রী, ওষুধপত্র সমস্ত কিছু যোগান দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি। এবং প্রতিটি রাজ্যের আটকে থাকা বাংলা শ্রমিকদের তালিকা তৈরি করে পাঠালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তার চিঠি পাওয়ার পর মহারাষ্ট্র সরকার সেখানে আটকে থাকা বাংলার শ্রমিকদের দেখাশোনা করেছেন। লকডাউন এর জেরে জেলার সমস্ত পরিবহন ব্যবস্থা বন্ধ, বন্ধ রেল পরিষেবাও। পরিস্থিতি খুব একটা ভালো না থাকার কারণে নিজের নিজের বাড়ি ফেরার পরিকল্পনা করেছিলেন ভিন রাজ্যে থাকা কর্মীরা। কিন্তু 24 তারিখ মাঝ রাত থেকে সারা দেশজুড়ে লকডাউন ঘোষণা হওয়ার পরে আটকে পড়েন তারা। আবার ঠিক একই অবস্থা অন্য রাজ্য থেকে এ রাজ্যে আসা শ্রমিকদের।

তাই সমস্ত দিক বিবেচনা করে 18 রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী কে চিঠি লিখেন পশ্চিমবাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাদের খাবার এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের জোগান দেওয়া কথা বলেছেন যেমনটা তিনি এরাজ্যে আটকে থাকা শ্রমিকদের ওপর দেখাশোনা করছেন। শুধু তাই নয় কোন রাজ্যের কতজন শ্রমিক আটকে পড়েছেন তার পরিচয় পত্র সহ একটি তালিকাও পাঠান তিনি বিভিন্ন রাজ্যগুলিতে।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিঠি পাওয়ার পরই মহারাষ্ট্র সরকার সেখানকার আটকে পড়া বাংলার শ্রমিকদের চিহ্নিত করার কাজ শুরু করে দিয়েছেন।তাদের কাছে যাতে নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস পৌঁছে যায় তার জন্য নির্দেশ দিয়েছে মহারাষ্ট্র সরকার। বর্তমানে মহারাষ্ট্রের পরিস্থিতি খুবই শোচনীয়। সেখানে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দিন দিন বেড়েই চলেছে। শুধুমাত্র সরকার নয় মুখ্যমন্ত্রীর দেওয়া চিঠি পেয়ে অন্যান্য সরকার একই পথে হাঁটছে। তিনি আবারও প্রমাণ করে দিলেন মানুষের দুঃসময়ে তিনি সবসময় পাশে আছেন।

Related Articles

Close