সমস্ত বকেয়া ডিএ মেটানো হয়েছে, পে কমিশনের নয়া ঘোষণা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের…

রাজ্যে বাজেট পেশ করার সময় বিধানসভায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে নিজের অবস্থান সম্পর্কে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এইদিন সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে তিনি জানালেন বেতন কমিশনের সুপারিশ কার্যকর করেছি বাকিটা সুপারিশেই বলা রয়েছে। তারই সাথে রাজ্যে সামর্থের কথাও জানান তিনি, জানান যতটুকু পারছি ততটুকু দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে আমাদের তরফ থেকে, তাই নেতিবাচক চিন্তা করবেন না একবার রাজ্যের কথা ভাবুন এবং ইতিবাচক চিন্তা ধারা করুন।

তারই সাথে এবার রাজ্যের বাজেট আলোচনায় প্রশ্ন উত্তর পর্বে বেতন কমিশন ও মহার্ঘভাতার প্রসঙ্গে জবাব দিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিধানসভাতে মুখ্যমন্ত্রী সাফ জানিয়ে দিলেন তার সরকার কর্মচারীদের কত শতাংশ বকেয়া মহার্ঘভাতা মিটিয়েছে। উল্লেখ্য চলতি অর্থবছরের নতুন যখন বেতন কাঠামো পেশ করা হয় তখন তাতে ডি-এর কথা উল্লেখ না থাকায় সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে একপ্রকার অসন্তোষ তৈরি হয়েছিল।ফলে বাজেট ও রাজ্যের পৃথক কোনো প্রস্তাবনা না পেয়ে কর্মী মহলে হতাশা বাড়তে থাকে।

তারপর একদিকে যেমন পে স্লিপ থেকে দিয়ে শব্দ উধাও হওয়ার ঘটনা ও বকেয়া নিয়ে স্যাটে মামলায় রায় ঘোষণার পরও তা কার্যকর না হওয়া যার ফলে ইতিমধ্যে রাজ্যের বিরুদ্ধে দায়ের করা হয়েছে আদালত অবমাননা।আর এই বিষয়ে গত 13 ই ফেব্রুয়ারি ছিল তার শুনানি যেখানে মহার্ঘ ভাতার ভবিষ্যৎ নিয়ে বেশ চিন্তায় রয়েছে কর্মচারী মহল।তবে এবার রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সেসব কর্মচারীদের জল্পনায় জল ঢেলে গতকাল বিধানসভায় নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন।

বিধানসভার মঞ্চে দাঁড়িয়ে তিনি জানান আগে 90 পার্সেন্ট মহার্ঘভাতা বকেয়া ছিল তা শোধ করে দিয়েছি, এমনকি রাজ্যের ষষ্ঠ বেতন কমিশন চালু করা হয়েছে। যার দরুন বর্ধিত বেতন ও পেয়েছেন কর্মচারীরা। তাই এখন টাকার অভাব রয়েছে তাও আস্তে আস্তে সব দিয়ে দেব। অন্যদিকে মহার্ঘ ভাতার বরাদ্দ শূন্য নিয়ে ক্ষোভে ফুঁসছে কর্মচারী মহল।বৃহস্পতিবার দিন মহার্ঘভাতার মামলার শুনানির গরহাজির ছিলেন সহকারী কর্তারা কিন্তু গত 5 ই ফেব্রুয়ারি স্যাটে আইনজীবীর পিটিশনের পাল্টা জবাব দেওয়ার কথা ছিল কিন্তু সেখানে অনুপস্থিত থাকার কারণে আদালত অবমাননার মামলা শুনানি হয়নি।

তাই আগামী 27 শে ফেব্রুয়ারি সরকারি কর্তার বক্তব্যকে পেশ করার সুযোগ দিয়েছে আদালত। তারই সাথে কর্মচারী সংগঠনের আইনজীবিকে আগামী 18 শে মার্চ আদালত অবমাননার বিষয়টি তুলে ধরার জন্য নির্দেশ দিয়েছে আদালত। গত বছর বকেয়া ডিএ সরকারি কর্মচারীদের মিটিয়ে দিতে হবে একথা জানিয়ে ছিল রাজ্য স্টেট অ্যাডমিনিটিভ ট্রাইবুনাল। এবং কীভাবে তা মেটানো হবে তাও বলা হয়েছিল স্যাটের তরফ থেকে। তবে এরপরও রাজ্য সরকার স্যাটের দেওয়া রায় পালন করেনি নির্ধারিত সময় শেষ হয়ে যাওয়ার পরও রাজ্য সরকার আবার এই রায়কে পুনঃনির্বাচনের জন্য আর্জি জানায়।

ফলে এই বিষয়টি নিয়ে মলয় মুখোপাধ্যায় পাল্টা রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায় করেন। আর আগামী 18 শে মার্চ এই মামলার শুনানি করা হবে।

Related Articles

Close