শৈত্যপ্রবাহের কারণে সতর্কতা জারি দুই বঙ্গে

মধ্যপ্রদেশের ঘূর্ণাবর্ত দুর্বল হওয়ায় শীতের আগমনের পথে আর বাধা নেই। অন্যদিকে, উত্তর পশ্চিম ভারতে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা আর নেই৷ তাই জাঁকিয়ে শীত পড়েছে। রাজস্থান, হরিয়ানা, চণ্ডিগড়, পঞ্জাব, দিল্লি ও উত্তরপ্রদেশে শৈত্যপ্রবাহ চলতে পারে৷ তাই আগাম সতর্কতা জারি করা হয়েছে। এই রাজ্যগুলিতে কোল্ডডের মতো পরিস্থিতিও তৈরি হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

আগামী ৩-৪ দিনে মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় এবং সংলগ্ন এলাকায় তাপমাত্রা ৩-৪ ডিগ্রি পর্যন্ত নেমে যেতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর৷  কলকাতার তাপমাত্রা নেমে যেতে পারে ১৩ ডিগ্রিতে। জেলাগুলিতে তাপমাত্রা নামতে পারে ১০ ডিগ্রির নিচে।

 

আবারও বড় ধাক্কা তৃণমূল শিবিরে, ইস্তফা দিলেন আরও এক হেভিওয়েট তৃণমূল বিধায়ক….

 

আগামী ৪৮ ঘন্টায় উত্তরবঙ্গের জেলাগুলির আবহাওয়া শুকনো থাকবে। আগামী কিছুদিন হিমালয় সংলগ্ন পশ্চিমবঙ্গে রাতের তাপমাত্রা সেরকম কোনও পরিবর্তন হবে না। তবে তারপরের দিন চারেকে তাপমাত্রা ৪-৬ ডিগ্রি পর্যন্ত নেমে যেতে পারে জানিয়েছে আবহাওয়া দফতরের তরফে। হিমালয় সংলগ্ন পশ্চিমবঙ্গের কোনও কোনও জায়গায় ঘন কুয়াশাচ্ছন্ন থাকবে৷

গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে আবহাওয়া শুকনো থাকবে। আগামী ১-২ দিন এই এলাকায় রাতের তাপমাত্রার সেরকম কোনও পরিবর্তন না হলেও, পরের দিন চারেকে তাপমাত্রা ৪-৬ ডিগ্রি পর্যন্ত নেমে যেতে পারে বলে জানানো হয়েছে। এছাড়াও গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গে আগামী দুদিন মধ্যমমানের কুয়াশার দাপট দেখা দিতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা( ডিগ্রি সেলসিয়াস)

ব্রাকেটে আগের দিনের তাপমাত্রা

আসানসোল ১৪.৫ (১৭.৩ )
বালুরঘাট ১৪.২ ( ১৪.৬)
বাঁকুড়া ১৬.১ ( ১৭.৯ )
ব্যারাকপুর ১৪.৯ ( ১৬.৯)
বহরমপুর ১৪.৬ (১৪)
বর্ধমান ১৬.৪ ( ১৫.৮)
ক্যানিং ১৬.৬ (১৭.৬)
কোচবিহার ১০.৬ ( ১১.৭)
দার্জিলিং ৪ (৪.৪)
দিঘা ১৭.৫ (১৬.৯ )
কলকাতা ১৭.২ ( ১৮.৩ )
মালদহ ১৫.৯ (১৬)
পুরুলিয়া ১৫ (১৫)
শিলিগুড়ি ৯.৭ (৯.৭)
শ্রীনিকেতন ১২.৯ ( ১৭.৫)