Vodafone-Idea র ৩৬ শতাংশ শেয়ার থাকবে এবার সরকারের কব্জায়! কেন হঠাৎ এই সিদ্ধান্ত, জানুন বিস্তারিত

ভারতের বেসরকারি টেলিকম সংস্থার গুলির মধ্যে অন্যতম হলো ভোডাফোন আইডিয়া। সম্প্রতি ভোডাফোন আইডিয়া লিমিটেড জানিয়েছে, ভারত সরকার কোম্পানির ৩৬ শতাংশ অংশীদারিত্ব অধিগ্রহণ করবে তারা। সম্প্রতি বোর্ডের তরফ থেকে লাইবিলিটি ইকিউটি পরিবর্তনের প্রস্তাব অনুমোদিত করা হয়েছে। সম্প্রতি ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, এই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করার পর সরকারের সব থেকে বেশি শেয়ার থাকবে ভোডাফোন আইডিয়ার কাছে।

ভারত সরকারের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হওয়ার পর ভোডাফোন গ্রুপ পিএলসির শেয়ার হবে ২৮.৫ শতাংশ এবং আদিত্য বিড়লা গ্রুপের শেয়ার থাকবে ১৭.৮ শতাংশ। সম্প্রতি টেলিকম সংস্থাগুলিকে স্বস্তি দেওয়ার জন্য ভারত সরকার অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন। সরকার স্পেক্ট্রাম চার্জ এবং এজিয়ার বকেয়া পরিশোধের জন্য সময়সীমা দিয়েছেন চার বছর। তবে সুদের হার অপরিবর্তিত থাকবে। কোম্পানি যদি চায় সেই সুদের অংশ ইক্যুইটিতে রূপান্তরিত করা হোক, সেক্ষেত্রেও সরকার অনুমতি দেবেন।

রিপোর্ট অনুযায়ী, সরকারকে প্রতি শেয়ারে ১০ টাকা হারে সরকারের কাছে ইক্যুটি ট্রান্সফার করা হবে।
উপরে উল্লেখিত হিসাবে, ইকিউটি ট্রান্সফারের পরে সরকারের সর্বোচ্চ অংশীদারত্ব থাকবে। তবে বর্তমান পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে ভোডাফোন সরকারি হবে কিনা, সেটাই একটি বড় প্রশ্ন।

ভোডাফোন আইডিয়ার পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, সরকার এবং প্রোমোটারদের মধ্যে পরিচালনাকারী শেয়ারহোল্ডার চুক্তির অধীনে করা হবে। প্রোমোটারদের অধিকারের জন্য শেয়ার হোল্ডিংয়ের সীমা ২১ শতাংশ থেকে কমিয়ে দেওয়া হবে ১৩ শতাংশতে। সরকারের তরফ থেকে ২০২১ সালের অক্টোবর মাসে টেলিকম ত্রাণ প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছিল। আপাতত ভোডাফোন আইডিয়া চার বছরের জন্য স্থগিতাদেশ নিয়ে নিয়েছে সরকারের কাছ থেকে। এই চার বছর সমান হারে সুদ গুনে যেতে হবে ভোডাফোন আইডিয়াকে।