অ্যাকশন শুরু, চীনের 800 কোম্পানিতে ব্যান করল আমেরিকা! এক ঝটকায় ডুবল 35 লক্ষ কোটি টাকা

সারা বিশ্ব জুড়ে যে মহামারির কবলে পড়েছে মানবসভ্যতা, আর তার পেছনে যে চীন রয়েছে তা নিঃসন্দেহে বলা যেতে পারে। বিশ্বের সবথেকে শক্তিশালী দেশ আমেরিকাও এর আগে এ বিষয় নিয়ে চীনের বিরুদ্ধে একাধিকবার অভিযোগ করেছে। শুধুমাত্র আমেরিকা নয় সমস্ত দেশেই চীনের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ তুলেছে বর্তমানে। আর তাই এবার থেকে চীন ও আমেরিকার মধ্যে যে সম্পর্ক ছিল তা পুরোপুরি ভেঙ্গে দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

অন্যদিকে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর নরেন্দ্র মোদিও আত্মনির্ভর ভারত গড়ে তোলার ডাক দিয়েছেন যেখানে বিদেশী পণ্য বর্জন করে স্বদেশী পণ্য কে কেনার জন্য দেশের জনগণকে আহ্বান জানিয়েছেন। আর এই আত্মনির্ভর প্রকল্পের ঘোষণা করার পর থেকেই চীন থেকে অধিকাংশ কোম্পানিগুলি তাদের ব্যবসা গুটিয়ে ভারতে বিনিয়োগ করতে চাইছে। তবে এখন যে খবরটি বেরিয়ে আসছে সেটি চীনের অর্থনীতিতে অনেকখানি বড় ধাক্কা দিয়েছে। পুরো বিশ্বে ভাইরাস ছড়িয়ে চীন যে কুকর্ম করছে তার ফল পাওয়া শুরু হয়ে গেছে।
বিশ্বের সবচেয়ে বড় বড় সংস্থা ইতিমধ্যে চীন থেকে তাদের ব্যবসা স্থানান্তরিত করতে শুরু করে দিয়েছে আর এখন আমেরিকার সিনেট একটা বড় পদক্ষেপ নিয়েছে যেখানে চীনের 800 টি কোম্পানিতে আমেরিকার শেয়ারবাজার থেকে ব্যান করে দেওয়ার বিল পাস করা হয়েছে। গতকাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেট এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।বলে রাখি চীনের জিডিপি ভারতের তুলনায় অনেক অনেক বেশি যার জন্য চীনকে আর্থিকভাবে দুর্বল করার ক্ষমতা একমাত্র আমেরিকার কাছে রয়েছে। যার দরুন গতকাল আমেরিকাকে একটি বড় ও কঠিন সিদ্ধান্ত গ্রহন করতে দেখা যায়।

আর আমেরিকার এরকম সিদ্ধান্ত নেওয়ার ফলে 35 লক্ষ কোটি টাকা ক্ষতিগ্রস্ত হবে চীন। অর্থাৎ এক ধাক্কায় আমেরিকা চীনের বিশাল অঙ্কের টাকার প্রবাহকে আটকে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যেহেতু চীনের জিডিপি (GDP) অনেকগুণ বেশি তাই চীনকে আর্থিকভাবে দুর্বল করার ক্ষমতা রয়েছে একমাত্র আমেরিকার কাছে। যে কোম্পানি গুলিকে আমেরিকার শেয়ার বাজার থেকে ডিলিট করা হয়েছে সেই তালিকায় রয়েছে বহু নামিদামি কোম্পানির নামও যাদের মধ্যে উল্লেখ যোগ্য রয়েছে আলিবাবা, বাইডু এর মতো বড় বড়ো কোম্পানির নাম। অর্থাৎ বিশ্বজুড়ে চীন যে ভাইরাস ছড়িয়ে শয়তানি বুদ্ধি দেখেছিল তার উল্টো গণনা শুরু হয়ে গেছে একপ্রকার, আর এবার তাই চীনের বিরুদ্ধে একাধিক আর্থিক অ্যাকশন নেওয়া শুরু হচ্ছে। আর এবার গোটা বিশ্ব চীনের পেছনে উঠে পড়ে লেগেছে যার দরুন চীনের পতন শুরু হয়ে গিয়েছে।

Related Articles

Close