ফুচকার জলে মেশানো হচ্ছিল “প্রস্রাব”, ভিডিও ভাইরাল হতেই গ্রেফতার বিক্রেতা

সম্প্রতি আসামের গুয়াহাটি তে একটি ভাইরাল ভিডিও (Viral video) কে কেন্দ্র করে চরম উত্তেজনা তৈরি হয়েছে । ফুচকা কমবেশি আমাদের সবাইকে খুব প্রিয় বিশেষত মেয়েদের । ফুচকা নিয়ে মজা করে আমরা অনেক কথাই বলে থাকি কিন্তু সেটা যে সত্যি হতে পারে তা অকল্পনীয় । মূল অভিযোগ এক ফুচকা বিক্রেতা ফুচকার জলে তার প্রস্রাব মিশিয়েছেন । পরে অবশ্য তিনি তাঁর সমস্ত দোষ স্বীকার করেন এবং গ্রেফতার করা হয় তাকে।

অভিযোগ হলো গুয়াহাটির এই ফুচকা ওয়ালা কিছু করছেন দেখে স্থানীয় লোকদের সন্দেহ হয়। লক্ষ্য করলে দেখা যায় তিনি তার পোশাকের তলায় একটি মগ ঢোকাচ্ছেন । তার প্যান্টও কিছু করতে দেখা যায়। তারপর একটি হলুদ রঙের বালতিতে সেই মেঘের জল ঢালতে দেখা যায় এ থেকে অনুমান করা যায় যে তিনি নিশ্চয়ই কিছু কুকর্ম করছেন।

স্থানীয় এক পথযাত্রী এ সমস্ত ঘটনার ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছেড়ে দেন।যদিও ভিডিওটিতে আদতে তিনি কি করছেন তা স্পষ্ট নয়।তবে ভিডিওটি ঘিরে জল্পনা তুঙ্গে চাঞ্চল্য তৈরি হয়েছে নেটিজেনদের মধ্যে। এক নেটিজেন এই ভিডিও পোস্ট করে তার তলায় লিখেছেন “ভয়ঙ্কর। রিপোর্ট অনুযায়ী এই ভিডিওটি ভাইরাল হওয়ার সাথে সাথে ঐ ফুচকাওয়ালা কে গ্রেফতার করা হয়.।তবে পুলিশের তরফ থেকে একথা জানা যাচ্ছে যে জেরা এবং জিজ্ঞাসাবাদের পর সেই ফুচকা বিক্রেতার নিজের সমস্ত দোষ স্বীকার করে নিয়েছেন। পরে অবশ্য তাকে আরো কিছু জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

 

ফুচকা খুবই জনপ্রিয় একটি স্ট্রিটফুড কমবেশি আমরা সকলেই ফুচকা পছন্দ করে থাকি ।যদিও আমাদের দেশে মেয়েদের মধ্যেই এই ফুচকা খাওয়ার প্রবণতা বেশি। তবে বর্তমানে আট থেকে আশি সবাই মজেছেন এই ফুচকার প্রেমে। এমত অবস্থায় ফুচকার জল এই ভাবে প্রস্রাব মিশিয়ে দেয়ার ঘটনা ডাকনি ঘটনাকে কেন্দ্র করে তুমুল সমালোচনার ঝড় উঠেছে।

সমালোচনা করা হচ্ছে ধৃত ব্যক্তিকে কেন্দ্র করে।সোশ্যাল মিডিয়ায় কেউ বলছেন এটি একটি অত্যন্ত “অমানবিক কাজ” আবার কারোর কথায় “এটি অত্যন্ত জঘন্যতম কাজ ” অনেকে বলছে “অত্যন্ত বাজে মানসিকতার প্রমাণ।