চাপের বিবৃতিতে সই করতে বাধ্য হল চীনও, পুলওয়ামা-হামলায় রাষ্ট্রসংঘে উঠল জইশ-ই মহম্মদের নাম..

আরো একবার বড় জয় পেল ভারত! রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা পরিষদে পেল সেই জয়। 14 ই ফেব্রুয়ারি ঘটা পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলার তীব্র নিন্দা যৌথ বিবৃতি রাষ্ট্রসঙ্ঘের। আর এই আলোচনার মধ্যে উঠে এলো জইশ মোহাম্মদের নাম। অবশেষে আমেরিকা, ফ্রান্সের চাপে বিবৃতিতে সই করতে বাধ্য হলো চীন ও। তবে মাসুদ আজহার কে এখনো পর্যন্ত আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদ বলে ঘোষণা করতে নারাজ বেজিং। দিন যত এগিয়ে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক চাপে ততই কোণঠাসা হচ্ছে পাকিস্তান।তবে আপনাদের বলে দিয়ে এর আগে পাকিস্তান নিজের মুখ রাখতে মুম্বাই হামলার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সংগঠনের জামাত-উদ-দোয়া আর তাদের সেবা প্রতিষ্ঠান ফালাহ ও ইনসানিয়াত ফাউন্ডেশন কে নিষিদ্ধ করেছে।

লস্কর এর প্রকাশ্য সংগঠন হিসাবে কাজ করে থাকে এই জামাত উদ দোয়া। এছাড়াও পাকিস্তানি স্কুল, হাসপাতাল, মাদ্রাসা সহ 300 টি সংস্থা চালায় তারা। এর জন্য তাদের 50 হাজার স্বেচ্ছাসেবক এবং কয়েক শো জন কর্মী রয়েছে। আর এর আগে রাষ্ট্রসংঘ হাফিজকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করেছে। তবে হাফিজের সংগঠন নিষিদ্ধ করা হলেও এখনো মাসুদ আজহার কে নিয়ে একেবারে নিশ্চুপ রয়েছে ইসলামাবাদ। তবে প্রসঙ্গত 14 ই ফেব্রুয়ারি কাশ্মীরের পুলওয়ামায় ঘটে যাওয়া জঙ্গিহানা ফলে 44 জন জন শহীদ হয়েছেন। আর তারপরই রাষ্ট্র সংঘের তরফ থেকে তীব্র নিন্দা করা হয়েছে এই ঘটনার। আর এই ঘটনার জেরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, শ্রীলঙ্কার প্রধানমন্ত্রী রনিল বিক্রম সিংহ শহীদ জওয়ানদের প্রতি শোক বার্তা পাঠান।

এমনকি এরপরে ভুটানের বিদেশমন্ত্রী টান্ডি দরজির পাশাপাশি আমেরিকা রাশিয়া ও মালদ্বীপের বিদেশমন্ত্রী আব্দুল্লাহ শাহিদ এর তরফ থেকেও এই ঘটনার কড়া প্রতিক্রিয়া জানানো হয়।