ভারতকে ধোকা দিয়ে পাকিস্তানকে খুশি করতে গিয়েছিল তুরস্ক, শত্রুতার ফল মিলল হাতেনাতে

একটা সময় তুর্কি (Turkey) এবং ভারতের (india) মধ্যেকার বন্ধুত্ব এর সম্পর্ক বর্তমানে প্রায় নেই বললেই চলে৷ একটা সময় ছিল  যখন পাকিস্তানের বিপক্ষে গিয়ে  UNSC-তে ভারতের স্থায়ী সদস্যপদ লাভের পক্ষে সমর্থন জানিয়েছিল তুরস্ক। কিন্তু এখন তুরস্কের রাষ্ট্রপতি এরদোগান  সকল মুসলিম দেশের প্রধান হিসেবে তুরস্ককে দেখতে চায় । মুসলিম দেশের শীর্ষস্থানে অবস্থান করার লক্ষ্যে , এবার পাকিস্তানের সঙ্গে বন্ধুত্বেকে গুরুত্ব দিচ্ছে তুরস্ক।  পাকিস্তানকে খুশি করতে অন্তরাষ্ট্রীয় সভায় কাশ্মীর প্রসঙ্গে পাকিস্তানের হয়ে সওয়াল করেছে তুরস্ক। তুরস্ক বিশ্বের সকল মুসলিম দেশের পক্ষে থাকার কথা জানিয়েছে এবং সেইসঙ্গে মুসলিমদের উপর অত্যাচারের প্রতিবাদ করবে তুরস্ক।

এই সমর্থন করতে গিয়ে ভারতের সঙ্গে বিবাদে লিপ্ত হয়েছে তুরস্ক। এর ফলে এক নতুন সমস্যায় পড়েছেন তুরস্ক সরকার। সেইসাথে মুসলিম দেশের খলিফা হওয়ার স্বপ্ন অধরা এরদোগানের। চীনের শিনজিয়াং প্রান্তের উইঘুরে মুসলিমদের ভাষা, আদব-কায়দা প্রায় তুরস্কের মত৷ ১৯৫০ সালের পর থেকে চীন থেকে প্রচুর সংখ্যায় উইঘুরে মুসলিম তুরস্কে  আশ্রয় নিয়েছে। সেখানে তারা বিভিন্ন সংস্থা গঠন করে, চীনের উইঘুরে মুসলিমদের ওপর হওয়া অত্যাচারের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে। এইসব সংস্থা গোটা বিশ্বকে একজোট হয়ে চীনের উইঘুরে মুসলিমদের উপর হয়ে চলা অত্যাচারের প্রতিবাদ করার জন্য আর্জি জানায়।

রাষ্ট্রপতি পদে বসতেই ভারতীয়দের জন্য সুখবর দিলেন জো বাইডেন, করলেন বড় ঘোষণা

তুরস্কের এই আচরণ একেবারেই অপছন্দ  চীন সরকার এর৷ তাই চীন, তুরস্ককে একটি এক্সাডিশন ট্রিটিতে স্বাক্ষর করার অনুরোধ করে। এর ফলে  তুরস্ক থেকে চীনের উইঘুরে মুসলিমদের দেশে ফিরিয়ে নিতে হবে৷চীন তাদের বিপক্ষে কথা বললেই  চীন সরকার কৌশলে এই পত্রে স্বাক্ষর করিয়ে নেয়। এই  পত্রে স্বাক্ষর করে ফেলে তুরস্ক সরকার। কিন্তু এই বিল তুরস্কবাসীরা মানতে নারাজ। এদিকে আবার  পাকিস্তানকে খুশি করতে ভারতের থেকে করোনা ভ্যাকসিন না নিয়ে  চীনের থেকে ভ্যাকসিন নিচ্ছে তুরস্ক৷ আগেকার সেই সাক্ষরিত বিলের কারণে ভ্যাকসিন দেওয়ার চুক্তি হয়েছে। এর  ফলে বেশ কিছুটা সংকটে পড়েছে তুরস্ক সরকার।