BREAKING- চীনের বিরুদ্ধে নেওয়া কড়া পদক্ষেপে মাথায় হাত জিনপিংয়ের সরকারের, সংসদে করা হল বিল পাস…

যবে থেকে গোটা বিশ্বকে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ জাঁকিয়ে ধরেছে তবে থেকে চীন এবং আমেরিকার মধ্যে সম্পর্ক আরও অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এই দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা ক্রমশ বেড়েই চলেছে। তবে যেমনটা আমরা জানি এই মুহূর্তে গোটা বিশ্ব জুড়ে যে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়ছে তার পেছনে যে চীন রয়েছে তা বলার অপেক্ষা রাখে না কারণ চীনা সরকার করোনা সম্পর্কে অনেক তথ্য গোপন রেখেছিল গোটা বিশ্বের কাছে, যার ফলস্বরূপ আজ গোটা বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে করোনা। আর যার দরুন আমেরিকা সরকারের আক্রোশ ক্রমশ বাড়ছে চীনের প্রতি।

তবে এবার আমেরিকার রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প চীনকে শায়েস্তা করতে চীনের বিরুদ্ধে এক নতুন বিল পাস করলেন। যেখানে এই বিলে তিনি জানিয়েছেন উইঘুরে মুসলিমদের উপর হওয়া চীনের অত্যাচারের কথা।আর আমেরিকা তরফ থেকে এরকম এক পদক্ষেপের ফলে চীনের সংশয় আরো বেড়ে উঠলো। আমেরিকান রাষ্ট্রপতি উইঘুর সহ আরো অন্যান্য সংখ্যালঘুদের ওপর অত্যাচার চালানোর জন্য চীনকে শাস্তি দেওয়ার প্রস্তাবে স্বাক্ষর করেছেন।

আর এই প্রস্তাবের মধ্যে রয়েছে পশ্চিম শিনজিয়াং প্রান্তে উইঘুর আর অন্যান্য সংখ্যালঘুদের ওপর নজরদারি চালানো এবং তাদের গ্রেপ্তার করার জন্য চীনের অধিকারীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করার কথা। যারা জানেনা তাদের সুবিধার্থে বলে রাখি, যিনি এই মুহূর্তে এক লক্ষেরও বেশি মানুষকে খুব বাজে পরিস্থিতিতে গ্রেফতার করে রাখা হয়েছে। আর চীনের এই পদক্ষেপের বিরুদ্ধে অন্যান্য দেশের মধ্যে সবচেয়ে বড় পদক্ষেপ নিল আমেরিকা।

আর এই বিষয়ে একটি বিজ্ঞপ্তি ও জারি করা হয়েছে ইতিমধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের তরফ থেকে যেখানে তিনি জানিয়েছেন 2020 তে মানবাধিকার নীতি আইন মানবাধিকার লঙ্ঘনের অপরাধে দোষী সাব্যস্ত করা হবে। উইঘুরের অধিকারের লড়াই লড়া আইনজীবী ন্যরি টার্কেল সোশ্যাল মিডিয়ায় রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পকে ধন্যবাদ জানিয়ে লেখেন, ‘এত আমেরিকা আর উইঘুরদের জন্য একটি মহান দিন।”

Related Articles

Close