অসমে 15 আসনে প্রার্থী দিয়েছিল তৃণমূল, কেমন ছিল পারফরমেন্স, রইল পরিসংখ্যান

বাংলায় বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল কয়েকদিন আগেই ঘোষণা হয়েছে ।বাংলায় তৃণমূলের জয়জয়কার, তবে বাংলা জয়ের পাশাপাশি আসামেও আধিপত্য বিস্তার করতে চেয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস । এনআরসি (NRC) এবং  সিএএ (CAA) কে হাতিয়ার করে আসামের বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস (TMC)। আসামে নিজের অবস্থান পাকা করতে আসামের 15 টি কেন্দ্রে প্রার্থী দিয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস।

15 টি কেন্দ্রের মধ্যে 11 টি কেন্দ্রে ছিল সংখ্যালঘু মানুষের বসবাস । এবার জেনে নেওয়া যাক এই 15 টি কেন্দ্রে তৃণমূল কংগ্রেসের ফলাফল কেমন ? আসামে বাঙালিদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য  ডিটেনশন ক্যাম্প এর বিরুদ্ধে সরব হয়েছিল তৃণমূল কংগ্রেস।কিন্তু সেখানে মানুষের মনে কোনো রকম ছাপ ফেলতে পারেনি ঘাসফুল শিবির। 15 টি আসনেই তৃনমূল কংগ্রেস পরাজিত হয়েছে। 8  টি কেন্দ্রের থেকেও কম ভোট পেয়েছে তারা । তাই একপ্রকার বলা যায় জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেসের ।

সত্যিই 5G প্রযুক্তির কারণেই ছড়াচ্ছে Covid-19! কী জানা যাচ্ছে তথ্যে?

চারটি আসনে এক হাজারেরও কম ভোট পেয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল তুলনামূল। গোপীনাথ দাস তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে একটুখানি আশার আলো দেখিয়েছেন।  সেখানে তিনি 12571 টি ভোট পেয়েছেন।  অর্থাৎ 6 দশমিক 13 শতাংশ । তবে এতেও তার মান রক্ষা করা যায়নি। গোপীনাথ বাবুর জামানত বাজেয়াপ্ত হয়েছে।

কমিশনের নিয়ম অনুযায়ী আসামে 15 টি আসনে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দিয়েছিল।  সেখানে সবমিলিয়ে 36800 ভোট পেয়েছে। যা 1 শতাংশেরও কম।অন্যদিকে তৃণমূল প্রার্থীদের মধ্যে ভোট প্রাপ্তিতে দ্বিতীয় হয়েছেন আব্দুর রেজ্জাক শেখ।  বিলাসিপারা কেন্দ্রের মোট ভোট পেয়েছেন 6457 টি । বাকি 13 টি আসনে 1 থেকে 2 হাজার এর আশেপাশে ঘোরাফেরা করছে তৃণমূল প্রার্থীদের।