কাল থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে চালানো হবে 200 টি ট্রেন, তবে মানতে হবে এই বিশেষ নিয়ম, জেনে নিন বিস্তারিত..

দেশজুড়ে করোনার সংক্রমণ রুখতে দীর্ঘ দুই মাসেরও বেশি সময় ধরে সারা দেশজুড়ে চলছে লকডাউন। আর গত কয়েকদিন আগে ভারতীয় রেলের তরফ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল চতুর্থ দফার লকডাউন শেষ হবার পরবর্তীকালে অর্থাৎ 1 লা জুন থেকে ভারতে চলবে 200 টি ট্রেন। যদিও কয়েকদিন আগে থেকে এই ট্রেনের টিকিট বুকিং হওয়া শুরু হয়ে গেছে। যেহেতু এখনও করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হওয়ার কথা রয়েছে সেহেতু এই ভাইরাসের সংক্রমণের কথা ভেবেই যাত্রীদের সুরক্ষার উদ্দেশ্যে রেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে কয়েকটি গাইডলাইন তৈরি করা হয়েছে।

আর জানানো হয়েছে এই গাইডলাইন অবশ্যই মেনে চলতে হবে প্রত্যেকটি রেল যাত্রীকে। রেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে যাত্রীদের উদ্দেশ্যে জারি করা যায় গাইডলাইন গুলি হল নিম্নরুপ…

1) এক্ষেত্রে স্টেশন ও ট্রেনের এন্ট্রি পয়েন্ট ও এক্সিট পয়েন্টে স্যানিটাইজার অবশ্যই ব্যবহার করতে হবে।

2) প্রত্যেককেই মাস্ক পড়া অত্যন্ত জরুরী।

3) এক্ষেত্রে সমস্ত যাত্রীদের করা হবে স্ক্রিনিং।

4) তাছাড়া এক্ষেত্রে যাদের কনফার্ম ও ভ্যালিড টিকিট থাকবে তারাই কেবলমাত্র স্টেশনে ঢুকতে পারবেন৷

5) আর যাদের কোনো করোনা লক্ষণ থাকবে না তারাই কেবল মাত্র এই ট্রেন গুলিতে যাতায়াত করতে পারবে।

6) এক্ষেত্রে সমস্ত যাত্রীদের কিন্তু আরোগ্য সেতু অ্যাপ ডাউনলোড করা অত্যন্ত বাধ্যতামূলক।

7) তবে শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে যারা যাতাযাত করবেন তাদের প্রত্যেককেই সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে।

তবে এগুলি ছাড়াও আরো কয়েকটি নিয়ম জারি করা হয়েছে সেগুলি হল–

1) টিটিই-দের জন্য এক্ষেত্রে পিপিই কিটের ব্যবস্থা করা হচ্ছে ,এছাড়া মাস্ক ও গ্লাভস পড়তে হবে।

2) আর 30 দিনের জন্য যে অ্যাডভান্স টিকিটের বুকিংয়ের সময় নির্ধারিত করা হয়েছিল সেটি কে বাড়িয়ে এখন 120 দিন করে দেওয়া হয়েছে।

3) তার পাশাপাশি এখন টিকিট কাউন্টার গুলিতে বুকিং ও ক্যানসেলেশন উভয়ই করা যাচ্ছে।

4) আর এক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় যে ঘোষনাটি ভারতীয় রেলের তরফ থেকে করা হয়েছে সেখানে বলা হয়েছে কোন গর্ভবতী মহিলা, কিংবা কোন 10 বছরের নীচের শিশু ও 65 বছরের বেশি বয়সের ব্যাক্তিদের ট্রেনে যাতাযাত না করাই ভালো।