রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল একাধিক ঘোষণা! করোনার আবহে বদলে ফেলা হল ট্রেনের চেহারা

যত দিন যাচ্ছে তত ভারতে বেশি ঘনীভূত হচ্ছে করোনা ভাইরাসের প্রকোপ। এই মুহূর্তে গোটা ভারত জুড়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে 9 লাখ 67 হাজার 52 জন তবে এরই মধ্যে স্বস্তির খবর এটাই যে ভারতে অন্যান্য দেশের তুলনায় সুস্থতার হার অনেক বেশি এই করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পরও। আর এই মুহূর্তে গোটা ভারত জুড়ে COVID-19 এ আক্রান্ত হওয়ার পর সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন 5 লাখ 71 হাজার 460 জন। আর এই মরণ ভাইরাসের জেরে ভারতে মারা গিয়েছেন 23 হাজার 777 জন। তবে যেমনটা আমরা জানি ভারতে লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে বন্ধ রাখা হয়েছিল স্বাভাবিক যাত্রীবাহী ট্রেন চলাচল।

শুধুমাত্র পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর উদ্দেশ্যে এবং পণ্যবাহী মালগাড়ি গুলি খোলা ছিল এই সময়।
তাই বলা যেতে পারে করোনার হানায় একপ্রকার থমকে গিয়েছিল রেলের চাকা। তবে পরবর্তীকালে লকডাউন খোলার পর ধীরে ধীরে কয়েকটি ট্রেন পরিষেবা চালু করা হয়। তবে এবার করোনাভাইরাস মোকাবিলায় আগামী দিনে রেলপথের চাকা গড়াতে ট্রেনের কামরায় একাধিক বদল আনার পথে হাঁটতে চলেছে ভারতীয় রেল। করোনার ভাইরাস মোকাবিলার জেরেই ট্রেনের কোচ গুলিকে একাধিক বদল আনা হচ্ছে।

আর এবার তারই নকশা মঙ্গলবার দিন টুইটারে শেয়ার করলেন রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল। আর বলে রাখি এই নকশাটি এরকমভাবে বানানো হয়েছে যাতে ভাইরাস কোনভাবেই মানব শরীর স্পর্শ করতে না পারে। তাছাড়া এক্ষেত্রে নকশা অনুযায়ী ট্রেনের হাতল তামায় মোড়া রয়েছে। আর পাশাপাশি ট্রেনের দরজার ছিটকিনিতেও তামার প্রলেপ দেওয়া রয়েছে। তবে এখানেই শেষ নয় এর পাশাপাশি রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল আরো জানান যে এক্ষেত্রে প্লাজমা এয়ার পিউরিফিকেশন, ও টাইটানিয়াম ডি-অক্সাইডেরও আস্তরণ দেওয়ার মতো ব্যবস্থা রয়েছে।

ইতিমধ্যে কাপুরথালায় রেলের কারখানায় এই কোচগুলি তৈরি করা হয়েছে, যেখানে রয়েছে ফুট অপারেটেড ওয়াটার ট্যাপ। এক্ষেত্রে হাত নয় বরং পায়ের মাধ্যমে জল নেওয়া যাবে সাবান ব্যবহার করা যাবে এমনকি শৌচালয়ের দরজা ও ফ্লাশের জন্যও ব্যবহার করা হবে পা।তাই রেলের তরফ থেকে জানানো হয়েছে এই ভাইরাসের সংক্রমণ যতটা পারা যায় দূরে রাখার জন্যই এরকম এক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। এবং তার পাশাপাশি যতটা সম্ভব হাতের ব্যবহার কমানোর চেষ্টা করা হয়েছে এক্ষেত্রে। তাছাড়া যেগুলি ট্রেনের ক্ষেত্রে অতি প্রয়োজনীয় যেমন ট্রেনের হাতল, ছিটকানি সেগুলিকে তামা দিয়ে মুড়ে রাখা হয়েছে। ট্রেনের তরফে জানানো হয়েছে এ ক্ষেত্রে তামা দিয়ে এই কারণেই মোড়া হয়েছে এগুলি কারণ তামা এই ভাইরাস ধ্বংস করতে সক্ষম।

Related Articles

Back to top button