গরম চা আর সিগারেটের সুখটান হতে পারে মারাত্মক ক্ষতি

হাতে জ্বলন্ত সিগারেট, সঙ্গে গরম চা বা কফি কাপে চুমুক ৷ সকাল হোক কী সন্ধ্যে এই তো স্বর্গসুখ। অনেকের কাছেই এক্কেবারে ডেডলি কম্বো, কিন্তু আপনি কি জানেন আক্ষরিক অর্থেই ডেডলি এই যুগলবন্দী? বেশি গরম চা পান করার অভ্যাস অত্যন্ত খারাপ৷ এক্ষেত্রে ইসোফেজিয়াল ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়তে পারে৷ অ্যানালস অব ইন্টার্নাল মেডিসিন জার্নাল একটি প্রতিবেদন  প্রকাশ করা হয়েছে, সেখানে এই আশঙ্কার  কথা প্রকাশ করা হয়েছে ৷

 

যে ব্যক্তিরা রোজ ধূমপান এবং মদ্যপান করেন, তারা যদি অতিরিক্ত গরম চা পান করেন তাহলে তাদের ইসোফেজিয়াল (খাদ্যনালী) টিউমারের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়।

 

গবেষণা বলছে, যারা দিনে অন্তত এক গ্লাস  অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় গ্রহণ করেন , তারা যদি অতিরিক্ত গরম চা খান তাহলে তাদের খাদ্যনালীতে  ক্যান্সারের ঝুঁকি প্রবল বেড়ে যায়৷ অন্যদিকে যারা ধূমপান করে, তাদের মধ্যে অতিরিক্ত গরম চা পান করার একটা অভ্যাস থাকে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই৷

পিকিং ইউনিভার্সিটি হেলথ সায়েন্স এর চিকিৎসক গবেষক ড. জুন এলভির মতে , তামাক ও অ্যালকোহল দুটোকেই জীবন থেকে বাদ দিলে  এই ক্যান্সারটি প্রতিরোধ করা সবথেকে সহজ হবে। কিন্তু ধূমপান ও মদ্যপানের অভ্যাস যদি না থাকে তাহলে শুধু চা পান করলে চিন্তিত হওয়ার কারণ নেই৷

কীভাবে আধার কার্ডে ফোন নম্বর পরিবর্তন করবেন? বিস্তারিত জানতে

৩০ বছর থেকে ৭৯ বছর বয়সী সাড়ে চার লাখ ব্যক্তির ওপর সমীক্ষা করা হয়৷ যারা ধূমপান, মদ্যপান এবং চা পান এর  অভ্যাস ছিল তাদের  তথ্য সংগ্রহ করা হয়। তাতে দেখা যায়, গবেষণার শুরুতে তাদের কারোই ক্যান্সার ছিল না। কিন্তু পরবর্তী নয় বছর এই সাড়ে চার লাখ মানুষের তথ্য নেওয়া হয়। ১,৭৩১ জনের ইসোফ্যাজিয়াল ক্যান্সার ধরা পড়ে৷ দেখা যায়, যারা অতিরিক্ত গরম চা পান করেন, মদ খান এবং ধূমপান করেন তাদের ইসোফেজিয়াল ক্যান্সারের ঝুঁকি অন্যদের তুলনায় পাঁচগুণ বেশি।

তবে ঠিক কত তাপমাত্রায় থাকা চা পান করলে ইসোফেজিয়াল টিউমারের ঝুঁকি বৃদ্ধি পায় বা  এই নয় বছর সময় কালে  তাদের অভ্যাস পরিবর্তনের  এই ঝুঁকি কম বা বেশি হয় কিনা, এই সব বিষয় এই  গবেষণায় উঠে আসেনি।