অবশেষে সমস্ত জল্পনার অবসান ঘটিয়ে বিজেপিতে যোগ দিলেন বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না সহ,আরো অনেক নেতা-নেত্রী..

লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই বাংলায় যে গেরুয়া ঝড় উঠেছে তা এখনো পর্যন্ত অব্যাহত রয়েছে। লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল বলে দিয়েছে এ রাজ্যে বিজেপির দখল করাটা শুধু সময়ের অপেক্ষা। এ রাজ্যে 42 টি আসনের মধ্যে 18 টি আসন জয়লাভ করে বিজেপি শাসক দ্বন্দ্বের প্রমাণ করে দিয়েছে তারা কোন অংশে কম নয়। বিজেপির এই সাফল্যের ফলে চাপে পড়ে গেছে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস।

লোকসভা ভোটের ফল ঘোষণা করার পর থেকেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দল থেকে নেতা মন্ত্রীরা গেরুয়া শিবিরে যোগ দিতে শুরু করে দিয়েছে। তবে অন্যান্য রাজনৈতিক দলগুলোর তুলনায় তৃণমূল থেকে নেতা-মন্ত্রীরা বেশি পরিমাণে গেরুয়া শিবিরে যোগ দিচ্ছেন। তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক, কাউন্সিলর, পঞ্চায়েত প্রধান এবং দাপুটে নেতা নেত্রীরা সবাই বিজেপির দলীয় পতাকা হাতে তুলে নিচ্ছেন।

তৃণমূলের এই লাগাতার ভাঙ্গন কে আটকাতে ব্যর্থ হচ্ছেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আজকেও রাজ্য বিজেপির মুখ্য কার্যালয় অনেকেই বিজেপিতে যোগদান করলেন। তবে আজকে বিজেপিতে যোগদান করা নেতারা তৃণমূল কংগ্রেসের নয়, অন্যান্য দলের। উনিশ দশকের এক বিখ্যাত সিনেমা ‘ বেদের মেয়ে জ্যোৎস্না’ এর নায়িকা অঞ্জু ঘোষ বিজেপিতে যোগদান করলেন। এটাই তার রাজনীতিতে অভিষেক। এর আগে তিনি কোন রাজনৈতিক দলের সাথে যুক্ত ছিলেন না।

এদিন তিনি দিলীপ ঘোষের হাত ধরে বিজেপির দলীয় পতাকা হাতে তুলে নেন। অঞ্জু ঘোষের সাথে সিপিএম, নির্দল এবং কংগ্রেসের একাধিক নেতা নেত্রীরা বিজেপিতে যোগ দেন। এদিন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সাংবাদিকদের সামনে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস কে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, ‘ তৃণমূল দলটি এবার ভেঙে চুরমার হয়ে যাবে। বিজেপি এর আগে অনেকবার তৃণমূল, কংগ্রেস এবং সিপিএম এর তাবড় তাবড় নেতাদের নিজেদের দলে টেনে এনেছে। এবার বিজেপি অঞ্জু ঘোষ কে নিজেদের দলে টেনে এনে প্রমান করে দিলেন যে তারা সিনেমার জগতেও হাত দিলেন।