আবারো হাড় কাঁপানো কনকনে ঠাণ্ডায় কাঁপতে চলেছে গোটা বাংলা, এক ধাক্কায় তাপমাত্রার পারদ নামল তিন ডিগ্রির ও বেশি

এক ধাক্কায় তাপমাত্রার পারদ নেমে গেল তিন ডিগ্রির বেশি। আজ রবিবার কলকাতার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ১২.১ ডিগ্রি সেলসিয়াস এর কাছাকাছি । যা স্বাভাবিকের থেকে প্রায়  ৪ ডিগ্রি কম। শনিবার সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১৫.৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস। কুয়াশার (fog) সঙ্গে সমান তালে চলছে  উত্তরে হাওয়ার দাপট। বুধবার পর্যন্ত এই শৈত্য আবহাওয়া (winter) বজায় থাকবে  বলে জানিয়েছে  আলিপুর আবহাওয়া (weather) দফতর।

৩১ জানুয়ারি নাগাদ জম্মু ও কাশ্মীরে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা প্রবেশ করতে চলেছে। এর ফলে  ১ ফেব্রুয়ারি সোমবার থেকে ৩ ফেব্রুয়ারি বুধবার পর্যন্ত উত্তর পশ্চিম ভারতের রাজ্য অর্থাৎ জম্মু কাশ্মীর, হিমাচল প্রদেশ, লাদাখ, উত্তরাখণ্ডে প্রবল তুষারপাতের হতে পারে। পঞ্জাব, হরিয়ানা, চণ্ডীগড়, এবং পশ্চিম উত্তর প্রদেশে বৃষ্টি হতে পারে৷ সেইসঙ্গে  শৈত্যপ্রবাহের সতর্কবার্তা দেওয়া হয়েছে।

আগামী ৪৮ ঘন্টায় উত্তরবঙ্গে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই৷  আগামী ৩ থেকে ৪ দিন হিমালয় সংলগ্ন অঞ্চলে রাতের তাপমাত্রার  কোনও পরিবর্তন হবে না।  আগামী ২ দিন দু থেকে ৪ ডিগ্রি পর্যন্ত তাপমাত্রা বাড়তে পারে। জলপাইগুড়ি, কোচবিহার, উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, মালদহে ঘন কুয়াশা থাকতে পারে। এই কারণে দৃশ্যমানতা ২০০ মিটারের কম হতে পারে।

একদম সস্তায় 365 দিনের জন্য দুর্দান্ত প্ল্যান নিয়ে হাজির Jio,VI মিলবে Unlimited ডাটা সহ কলিং

গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গের জেলাগুলিতে আগামী দু থেকে তিন দিনে রাতের তাপমাত্রা ৩ থেকে ৪ ডিগ্রি পর্যন্ত কমতে পারে৷ বৃষ্টির সম্ভাবনা না থাকলেও সবকটি জেলাতেই হাল্কা থেকে মাঝারি কুয়াশা দেখা দিতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন শহরের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা( ডিগ্রি সেলসিয়াস)
আগের দিনের তাপমাত্রা বন্ধনীর ভেতর দেওয়া হল
আসানসোল ৭.৮ (১০.৩)
বালুরঘাট (১০.৪)
ক্যানিং ১২ (১৪)
কোচবিহার ৫.১ (৯.৭)
দার্জিলিং ২.৪ (২)
দিঘা ১২.৬ (১৪.৮)
কলকাতা ১২.১ (১৫.৩)
বাঁকুড়া ৮.৬ (১২.৯)
ব্যারাকপুর ৯.১


বহরমপুর ১৩ (১৪.২)
বর্ধমান ৮.৮ (১৩.৬)
মালদহ ৮.২ (১০.৭)
পানাগড় ৬.২ (১১.৩)
পুরুলিয়া ৬.৭ (১০.৩)
শিলিগুড়ি ৭.৫ (৯.৪)
শ্রীনিকেতন ৭.২ (১১.২)