সুষমা স্বরাজের পর আরো একবার রাজনৈতিক মহলে নেমে এলো শোকের ছায়া, প্রয়াত হলেন দেশের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি।

সুষমা স্বরাজ এর পর আরও এক বরিষ্ঠ নেতা ছেড়ে চলে গেলেন আমাদেরকে। দিল্লির এইমসে আজ শনিবার দিন বিকাল সাড়ে বারোটা নাগাদ দেশের প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন।গত 9 আগস্ট থেকে গুরুতর অবস্থায় অরুণ জেটলি কে এইমস দিল্লি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। শুক্রবার রাত থেকেই অরুন জেটলির শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল বলে জানায় সংবাদসংস্থা পিটিআই।

গতবছর কিডনি প্রতিস্থাপন হয়েছিল প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীর। আর চলতি বছরের জানুয়ারিতে তাঁর ক্যান্সারও ধরা পড়ে। প্রবল শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে কিছুদিন আগেই ভর্তি হয়েছিলেন হাসপাতালে। তার পর থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। ভেন্টিলেশনে স্থানান্তরিত করা হয়েছিল তাঁকে। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল 66 বছর। শ্বাসকষ্ট ও শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে গত 9 আগস্ট তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

আর তারপর 10 আগস্ট থেকে প্রাক্তন এই মন্ত্রীর স্বাস্থ্য নিয়ে বিবৃতি দেওয়া বন্ধ করে দেয় এইমস কর্তৃপক্ষ।তারপর মেডিক্যাল বুলেটিনের তরফ থেকে জানানো হয়, তাঁকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছে। বিশেষজ্ঞ ডাক্তারদের একটি টিম তাঁকে পর্যবেক্ষণে রেখেছিলেন। আর এরপর হাসপাতালে অরুণ জেটলি কে দেখতে যান বিশিষ্ট রাজনৈতিক ব্যক্তিরা যাদের মধ্যে রয়েছেন রাজনাথ সিং, স্মৃতি ইরানি, জিতেন্দ্র সিং ,রামবিলাস পাসোয়ান, যোগী আদিত্যনাথ শুধু তাই নয় তাকে দেখতে গিয়েছিলেন অনেক বিরোধী নেতারাও। এমন কী রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দও জেটলিকে হাসপাতালে দেখে এসেছেন। প্রসঙ্গত,গত 2018 সালের 14 ই মে তার কিডনির প্রতিস্থাপন করা হয়েছিল। যার দরুন তিনি 2019 এর লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে রাজি হননি। তারপর তিনি নির্বাচন থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে নেয়। তারপর যতদিন পেরিয়ে যেতে থাকে তার শারীরিক অবস্থা দিন দিন খারাপ হতে শুরু করে।

Related Articles

Close