দুধ বেচতে ৩০ কোটি টাকার হেলিকপ্টার কিনলেন কৃষক

স্বপ্ন যদি হয়  দূর আকাশে  উড়ানের,  স্বপ্ন যদি সব বাধা পেরিয়েও ইচ্ছে-পূরণ এর হয় তাহলে সেই স্বপ্নে বাঁচাও যায় আর সেই স্বপ্ন সফল করতেই হয়। ভারতের মতো কৃষিপ্রধান দেশে কৃষকদের দুর্দশা কম কিছু নয়, কিন্তু এর মধ্যেও ব্যতিক্রম হিসেবে শিরোনামে উঠে এসেছেন মহারাষ্ট্রে জনার্দন ভইর। একথাই আরো একবার  প্রমাণ করে দিলেন মহারাষ্ট্রের চাষি জনার্দন ভইর (Janardhan Bhoir)।

পেট এর দায়ে চালাতে দুধ বেচতেন। অক্লান্ত পরিশ্রমের জেরে সেই দুধের ব্যবসাকে আজ এমন পর্যায়ে তিনি নিয়ে গিয়েছেন যে, দুধ বেচার জন্যই কিনে ফেললেন ৩০ কোটি টাকার হেলিকপ্টার। একটি হেলিপ্যাড তৈরি করারও পরিকল্পনা করেছেন তিনি৷

প্রথম জীবনে চাষাবাদ করতেন জনার্দন। তার পরে দুধের ব্যবসা শুরু করেন। ডেয়ারি ব্যবসার হাত ধরেই বিল্ডার হিসেবে কাজ শুরু করে দেন। কাজের সূত্রে দেশের নানা প্রান্তে ঘুরে বেড়াতে হয়। তাঁকে হরিয়ানা, পঞ্জাব, গুজরাত।  কিন্তু এর মধ্যে অনেক জায়গাতেই বিমানবন্দর নেই। তাই সেই অসুবিধা দূর করতে হেলিকপ্টার কেনার পরিকল্পনা করেন। সিদ্ধান্ত নেন, এখন থেকে হেলিকপ্টারে করেই ব্যবসা এগিয়ে নিয়ে যাবেন তিনি। তারপর বন্ধুদের সঙ্গে পরামর্শ করে একটা  হেলিকপ্টার কিনে ফেলেন মহারাষ্ট্রে ভিওয়ান্ডি এলাকার এই বাসিন্দা।

সম্প্রতি ভইরের গ্রামে হেলিকপ্টারটির ট্রায়াল রান হয়েছে। গ্রামের পঞ্চায়েত থেকে শুরু করে  গ্রামবাসীদের সবাইকে হেলিকপ্টারে চড়িয়েছেন তিনি। আগামী  ১৫ সেপ্টেম্বর হেলিকপ্টার হাতে পাচ্ছেন জনার্দনবাবু। বাড়ির পাশে এবার একটি হেলিপ্যাড এর  পরিকল্পনাও করছেন তিনি।

তিনি বলেন, “আমার কাছে ২.৫ একর জমি আছে, যেখানে হেলিকপ্টারের জন্য হেলিপ্যাড ও অন্যান্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো তৈরি করা হবে। ”

হাতের তালু থেকে নিশ্চিন্তে জল খাচ্চে বিরল প্রজাতির সবুজ সাপ, ঝড়ের গতিতে ভাইরাল ভিডিও
পাইলট রুম, টেকনিশিয়ান রুমও বানাচ্ছেন তিনি।  প্রায় ১০০ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে জনার্দন ভইরের। দুধের ব্যবসার পাশাপাশি ভিওয়ান্ডি এলাকায় বেশ কয়েকটি গুদাম রয়েছে তাঁর। সেখান থেকেও বেশ ভালো আয় হয়।

প্রসঙ্গত, গত বছরও নাতির বিয়েতে যাওয়ার জন্য অশীতিপর দম্পতি হেলিকপ্টার ভাড়া করেছিলেন। কেরলের প্রাক্তন IRTS অফিসার ও তাঁর স্ত্রী করোনা আবহে  এই সিদ্ধান্ত নেন। তবে মহারাষ্ট্রের জনার্দন ভইরের হেলিকপ্টার কেনা সত্যি অনেকের  কাছে দৃষ্টান্ত হয়ে রইল!