তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় টিকিট না পেয়ে এক এক করে বিধায়করা গেরুয়া শিবিরে ফোন লাগিয়েছেন

নির্বাচনের দিনক্ষণ আসতে মাত্র হাতে গোনা কয়েকটা দিন বাকি। শুক্রবার অর্থাৎ ৫ ই মার্চ তৃণমূলের সভানেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁদের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করেন। প্রার্থী তালিকায় এবার তৃণমূলের বড়োসড়ো চমক দেখা গেছে। তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় বেশিরভাগ স্থান দেওয়া হয়েছে টলিউডের বিভিন্ন তারকাদের। ফলে এবছর স্থান পাননি অনেক বিধায়কেরা। প্রার্থী তালিকায় না থাকার জন্য অনেক বিধায়ক ফোন করেন গেরুয়া শিবিরে।

 

প্রার্থী তালিকায় যাদের নাম প্রকাশ করা হয়নি তাদের নাম উল্লেখ করে তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন ওইসব বিধায়কদের বিধান পরিষদের প্রার্থী করবেন। কিন্তু বাংলায় তো বিধান পরিষদই নেই তবে বিধায়কদের বিধান পরিষদের প্রার্থী কি করে করবেন মমতা ব্যানার্জি?

এই প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী বলেন যে, এবার বিধানসভা ভোটে জিতলে তিনি বিধান পরিষদ গঠন করবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন। অনেক বিধায়কদের প্রার্থী তালিকায় স্থান না দেওয়ার জন্য তিনি ওই বিধায়কদের অসুস্থতা এবং বয়স হওয়াকে হাতিয়ার করেছেন। বিধায়ক জটু লাহিড়ীর কথা উল্লেখ করে তৃণমূল নেত্রী বলেছেন, ওনার নাকি অনেক বয়স হয়েছে। আবার সোনালি গুহ আর অমিত মিত্রকে টিকিট না দেওয়ার জন্য বলেছেন, এঁরা অসুস্থ। তবে এদেরও বিধান পরিষদের সদস্য করবেন বলে আরও একবার আসস্ত করেছেন।

তৃণমূলের প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরই বিধায়ক মহল থেকে এক এক করে ফোন করা শুরু হয়েছে গেরুয়া শিবিরে। তৃণমূলের অবাঙালি নেতা দীনেশ বাজাজ ভেবেছিলেন যে তিনি তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় স্থান পাবেন। কিন্তু সেখানে স্থান না পাওয়ায় প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরই তৃণমূল থেকে পদত্যাগ করেছেন। তৃণমূল নেত্রী সোনালী গুহ তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় টিকিট না পাওয়ায় ক্যামেরার সামনেই হাউ হাউ করে কেঁদে ফেলেছেন। বীরভূমের নলহাটির বিধায়ক তৃণমূলের প্রার্থী তালিকায় স্থান না পাওয়ায় ক্ষোভ উগরে দিলেন। এই নেতা বলেছেন, তিনি একজন টুপি পড়া মুসলমান। কয়লা মাফিয়াদের সাথে হাতে হাত মেলাতে পারিনি বলেই তাঁকে প্রার্থী তালিকায় রাখা হয়নি।

ইতিমধ্যেই গেরুয়া শিবির থেকে ঘোষণা করা হয়েছে যে, যে সমস্ত তৃণমূলের বিধায়করা প্রার্থী তালিকায় স্থান পাননি তাঁরা চাইলেই গেরুয়া শিবিরে যোগদান করতে পারেন। তবে তাঁদের যে পদ্ম নির্বাচনের জন্য প্রার্থী করা হবে এমন আশ্বাস দেওয়া যাচ্ছেনা কারণ যারা এতদিন ধরে বিজেপি দলটাকে টেনে নিয়ে এসেছেন তাদের প্রার্থী করার জন্য আগে বাছা হবে।