আগামী 48 ঘন্টা প্রবল দুর্যোগের আশঙ্কা, শক্তি বাড়িয়ে বঙ্গোপসাগর থেকে ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় “আমফান”

আজ বিকেলের পর থেকে রবিবার পর্যন্ত রাজ্যে প্রবল বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস আগামী 48 ঘন্টা প্রবল দুর্যোগের আশঙ্কা রয়েছে কারণ এবার শক্তি বাড়িয়ে রাজ্যের দিকে ধেয়ে আসছে আমফান। যার জেরে এবার ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস রয়েছে দু’একটি জেলাতে তাছাড়া এর জেরে উত্তরবঙ্গেও আজ ভারী ঝড় বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর।আন্দামান সাগরে ঘূর্ণাবর্ত শক্তি বাড়িয়ে আজই নিম্নচাপে পরিণত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে প্রবল।

তাছাড়া এবার আন্দামান-নিকোবর এবং উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্যগুলি তে আগামী চার-পাঁচ দিন ঝড়- বৃষ্টি আরো বাড়বে। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের প্রাপ্ত খবর অনুযায়ী জানতে পাওয়া যাচ্ছে এই মুহূর্তে সুমাত্রা দ্বীপের ঘূর্ণবর্ত দক্ষিণ আন্দামান সাগরে অবস্থান করছে আবার সেটি পরবর্তীকালে শক্তি বাড়িয়ে নিম্নচাপে পরিণত হবে এবং পরবর্তী 48 ঘন্টার মধ্যে তার প্রতি গভীর নিম্নচাপে পরিণত হবে। প্রথমে উত্তর-উত্তর পশ্চিম দিকে এবং পরে উত্তর উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হবে। অর্থাৎ মায়ানমার ও বাংলাদেশের সংলগ্ন উপকূলেও প্রবেশ করবে এটি উপকূলে প্রবেশ করার সময় গভীর নিম্নচাপের সঙ্গে প্রতি ঘণ্টায় 70 কিলোমিটার বেগে ঝড় হাওয়ার সৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। যার জেরে আপাতত মৎস্যজীবীদের সমুদ্রে যেতে মানা করা হয়েছে।এই মুহূর্তে আন্দামান সাগর ও দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগরে মৎস্যজীবীদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আজ সকাল থেকেই এই নিম্নচাপের জেরে কলকাতাসহ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে আংশিক মেঘলা আকাশ লক্ষ্য করা এমন কী বেলা বাড়ার সাথে সাথে আকাশ আরো কালো ও মেগলা হতে দেখা যাচ্ছিল। যার জেরে দুপুর থেকে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাত লক্ষ্য করা গেছে।অন্যদিকে আজ শুক্রবার দিন কলকাতার সকালে সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল 25 ডিগ্রি সেলসিয়াস যা স্বাভাবিক তাপমাত্রার চেয়ে 1° নিচে। অন্যদিকে গতকাল বিকেলে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল 33.9 ডিগ্রী সেলসিয়াস। তাছাড়া এই মুহূর্তে বাতাসের আপেক্ষিক আদ্রতার পরিমাণ রয়েছে 55 থেকে 89 শতাংশ। তবে এবার এই আমফানের জেরে আগামী 4 থেকে 5 দিন ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে আন্দামান-নিকোবর দ্বীপপুঞ্জে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে কর্ণাটক উপকূলবর্তী অঞ্চল গুলিতে এবং আসাম, মেঘালয়, মিজোরাম, নাগাল্যান্ড, ত্রিপুরাতেও।

তবে একদিকে যেমন উত্তরবঙ্গে রয়েছে একটি ঘূর্ণাবর্ত অন্যদিকে সেরকম দক্ষিণ ওড়িশাতেও তৈরি হয়েছে একটি ঘূর্ণাবর্ত যার ফলে প্রচুর পরিমাণে জলীয় বাষ্প ধুকছে রাজ্যে। যার প্রভাবে রাজ্যে তৈরি হয়েছে বজ্রবিদ্যুৎ সহ বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা।রাজ্যের বেশ কয়েকটি জেলায় বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টিপাত হয়েছে নদিয়া, উত্তর 24 পরগনা কিছু এলাকায় ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস রয়েছে। তাছাড়া গতকাল রাতেই জম্মু- কাশ্মীরে পশ্চিমী ঝঞ্জা প্রবেশ করেছে তাছাড়া আগামী রবিবার দিন আরো একটি পশ্চিমী ঝঞ্জা ঢুকবে জম্মু-কাশ্মীরে তারপর আগামী কয়েকদিন জম্মু কাশ্মীর, হিমাচল প্রদেশ উত্তরাখণ্ড, লাদাখ এবং পাঞ্জাব সহ উত্তর-পশ্চিম ভারতের রাজ্যগুলিতে রয়েছে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা।

Related Articles

Close