নতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

এই পাঁচটি লক্ষণের মাধ্যমে বুঝে নিতে পারবেন শরীরের প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল কীনা? বিশদে জানতে..

যেমনটা আমরা জানি এখনো পর্যন্ত এই মরণ ভাইরাস COVID-19 এর সংক্রমণ এড়াতে কোন ভ্যাকসিন বা ওষুধ হাতে আসেনি। তাই এরকম এক পরিস্থিতিতে দেশের বিজ্ঞানীমহল এই ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করতে শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতাকে ভরসা করছেন। এই মরণ ভাইরাসের ভ্যাকসিন তৈরি করতে উঠে পড়ে লেগেছে সকল বিজ্ঞানীমহল।তবে এক্ষেত্রে শরীরের শক্তিশালী রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কিন্তু এই ভাইরাসের সংক্রমনের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অনেক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে।

এই বিষয়ে যে তথ্য বেরিয়ে এসেছে তাতে দেখা যাচ্ছে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা যাদের দুর্বল তারা খুব সহজেই এই করোনা ভাইরাসের কবলে পড়ে যাচ্ছেন।আর এক্ষেত্রে তার শরীরের প্রতিরোধ ব্যবস্থা দুর্বল হওয়ার পেছনে যে কারণগুলো উল্লেখ করেছেন সেগুলি হল কোনরকম পূর্ববর্তী অসুস্থতা, অতিরিক্ত মাত্রায় অ্যালকোহল পান করার অভ্যাস। অথবা অতিরিক্ত পরিমাণে সিগারেট খাওয়ার অভ্যাস। শুধু এইগুলি নয় এর পাশাপাশি পর্যাপ্ত ঘুম না হওয়া অথবা পুষ্টিকর খাদ্যের অভাব শরীরের রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতাকে আরো অনেকখানি দুর্বল করে ফেলে।

শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হয়ে যাওয়ার ফলে আপনিও বারবার অসুস্থ হয়ে পড়তে পারেন। তবে শুধু তাই নয় এক্ষেত্রে রোগাক্রান্ত হলে আপনাকে অনেক অনেক বেশি সময় লাগবে। তবে আজকে আমাদের আলোচ্য বিষয় থাকছে পাঁচটি লক্ষণ সম্পর্কে যেগুলো দেখে আপনি বুঝতে পারবেন আপনার প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে কীনা।আর এই ধরনের লক্ষণ যদি আপনার শরীরে দেখা মিলে তাহলে সেক্ষেত্রে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

1) ক্ষত নিরাময়- এক্ষেত্রে আপনাকে দেখতে হবে শরীরের কোন ক্ষত নিরাময়ের সময় ত্বকে একটি স্তর তৈরী হয় যা শরীর থেকে রক্ত বেরিয়ে আসতে বাধা দিয়ে থাকে যেটিকে রক্ত তঞ্চন বলা হয়ে থাকে।আর এক্ষেত্রে যদি আপনার শরীরের ক্ষত দ্রুত নিরাময় না হয় তাহলে এটি হতে পারে যা আপনার শরীরে প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল রয়েছে, এই একই সমস্যা দেখা মিলবে সর্দি ও ফ্লু তেও। এক্ষেত্রে দেখতে হবে যদি এক সপ্তাহেরও বেশি সময় ধরে আপনার শরীরে বাসা বেঁধেছে জ্বর, সর্দি-কাশির লক্ষণ তাহলে বুঝতে হবে আপনার শরীরের সংক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াই করার ক্ষমতা কম রয়েছে। তবে এক্ষেত্রে ক্ষত নিরাময়ের সময় বেশি লাগার ক্ষেত্রে আবার ডায়াবেটিসের ও লক্ষণ হতে পারে।

2) অ্যালার্জি সমস্যা- এই সমস্যা প্রায় অধিকাংশ মানুষের দেখতে পাওয়া যায় আর এটি বিভিন্ন মরসুমে বিভিন্ন ব্যক্তির হয়ে থাকে।যার কারণে তাদের মরসুম বদল এর সময় জ্বর হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।আর এক্ষেত্রে যদি আপনার চোখের জল সময় পড়তে থাকে তাহলে কোন খাদ্য প্রক্রিয়ার ফলে ত্বকে ফুসকুড়ি, পেটের সমস্যা ও জয়েন্ট পেইন সমস্যাগুলি দেখা দেয়। এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল থাকার ও লক্ষণ হতে পারে।

3) সারাক্ষণ অলসতা বোধ কিংবা ক্লান্ত লাগা- বেশিরভাগ সময় যদি ক্লান্ত বোধ করে থাকেন তাহলে সে ক্ষেত্রে বিভিন্ন কারণ থাকতে পারে যেমন ঘুম, রক্তাল্পতা বা দীর্ঘস্থায়ী ক্লান্তি সিনড্রোমের অভাব। আর যদি আপনি এক্ষেত্রে এর কারণ না জেনে থাকেন তাহলে পর্যাপ্ত পরিমাণে ঘুমানোর পরেও যদি ক্লান্তবোধ হয়ে থাকে তাহলে সে ক্ষেত্রে বুঝতে হবে যে আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম রয়েছে।

4) হজমের সমস্যা- এই সমস্যাটি প্রায় অধিকাংশ মানুষের দেহে লক্ষ্য করা যায়। যদি দেখতে পান আপনার ঘন ঘন পেট খারাপ হচ্ছে, আলসার, গ্যাস, পেট ফোলা ভাব সমস্যা রয়েছে তাহলে এক্ষেত্রে মনে রাখবেন আপনার শরীরের ইমিউন সিস্টেমটি কিন্তু সঠিকভাবে কাজ করছে না। যার ফলে এটিও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ক্ষেত্রে দুর্বল।

5) বারবার অসুস্থ হয়ে পড়া -এক্ষেত্রে অধিকাংশ সময় যখন আবহাওয়া পরিবর্তন হয় বিশেষ করে শীতকালে সময় তখন অসুস্থ হওয়া টা সাধারণ তবে আপনি যদি অধিকাংশ সময় আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে অসুস্থ হয়ে পড়েন তাহলে কিন্তু এটি মনে রাখতে হবে এটি আপনার শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা দুর্বল হওয়ার কারণ হতে পারে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ব্যাকটেরিয়া ভাইরাস এবং রোগের সঙ্গে লড়াইতে থাকে। আপনি যদি প্রায় ইউরিনের সংক্রমণ, মুখের ঘা, সর্দি কাশি, ফ্লু এর সমস্যায় ভুগে থাকেন তাহলে এক্ষেত্রে আপনাকে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া অত্যন্ত জরুরি।

Related Articles

Back to top button