ফের চাঞ্চল্যকর তথ্য! ভোটের আগেই গ্রাহকদের ব্যাংক একাউন্টে ঢুকছে হাজার হাজার টাকা।

লোকসভা ভোটকে ঘিরে রাজ্যে তৃণমূল ও বিজেপি সংঘাত ক্রমশই প্রকাশ্যে। আর ভোট যতই এগিয়ে আসছে ততই সেই সংঘাত আরও বাড়ছে। যদিও এ সংঘাত শাসক দল আর বিরোধী দলের আসন জেতার লড়াই। বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ করে এবারের ভোটে বঙ্গে 42 টি আসনে প্রার্থী ঘোষনা করে দিয়েছে মমতার সরকার। সেই মতো প্রচার চালানোও প্রায় শুরু হয়ে গিয়েছে। অন্যদিকে মাত্র দুদিন আগেই বিজেপি প্রার্থীদের নাম ঘোষনা করে দিয়েছে।আর অন্যদিকে লোকসভা নির্বাচনের আগে এক বড় খবর সামনে বেরিয়ে আসছে যেখানে বলা হচ্ছে ভোটের আগে শতাধিক গ্রাহকের জিরো ব্যালেন্সের ব্যাংক একাউন্টে ঢুকছে কয়েক হাজার টাকা করে।

সূত্র অনুসারে জানতে পারা গেছে এই ঘটনাটি ঘটেছে নদীয়ার বড়জাগুলিতে। এই ঘটনার পরই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।এখনো পর্যন্ত পাওয়া খবর অনুযায়ী জানতে পারা গেছে একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংকের বড়জাগুলী শাখা থেকে গত কয়েক দিনে 100 এর ও বেশি গ্রাহকদের ব্যাংক একাউন্টের খাতাতে 2 থেকে 10 হাজার টাকা করে ঢুকছে। সেখানকার তৃণমূল কংগ্রেস হরিণঘাটা ব্লক সভাপতির চঞ্চল দেবনাথ সেখানকার গ্রাহকদের পরিষেবা কেন্দ্র থেকে ওই সকল গ্রাহকদের আধার কার্ড পরিচয় পত্র সাথে 110 টাকা নিয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষের সঙ্গে দেখা করতে বলেছে। শাসক দলের পক্ষ থেকে নদীয়া জেলা শাসকের কাছে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে এ বিষয়ে। এই ঘটনাকে ঘিরে আদর্শ আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। তবে এখনো পর্যন্ত অভিযোগ একটাই কোথা থেকে এলো এই টাকা কে পাঠিয়েছে এই টাকা?

ব্যাংক কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে কোন প্রকার উত্তর মিলেনি এই ব্যাপারে। তবে অভিযোগের ভিত্তিতে এবার পুরো বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছে নদীয়া জেলা প্রশাসক।সামনেই লোকসভা নির্বাচন আর তার মধ্যে এরকম ভাবে গ্রাহকদের ব্যাংক একাউন্টে টাকা ঢোকার বিষয়টিকে অতি গুরুত্বপূর্ণ হিসাবে দেখা হচ্ছে।