এবার মাত্র ১০ হাজার টাকা পোস্ট অফিসে সেভিংস করে আপনিও পেয়ে যেতে পারেন ১৬ লক্ষ টাকা, কীভাবে বিস্তারিত জানতে

বর্তমানে আপনি যদি ইনভেস্টমেন্টে কোনরকম রিক্স নিতে না চাইলে এবং গ্যারান্টিড রিটার্ন আশা করে থাকলে পোস্ট অফিসের এই বিশেষ স্কিমটি বেশ লাভজনক হতে পারে আপনারও। এই স্কিমে যেমন আপনার টাকা সুরক্ষিত থাকবে, তেমনি পেয়ে যাবেন গ্যারান্টিড রিটার্ন। পোস্ট অফিসের একাধিক স্মল সেভিংস স্কিম বর্তমানে রয়েছে। যেখানে টাকা ইনভেস্ট করলে মোটা অংকের টাকা আয় করা যায়। সেই রকমই একটি স্কিম হলো পোস্ট অফিসে রেকারিং ডিপোজিট(R.D), আসুন জেনে নেওয়া যাক স্কিমটির সম্পর্কে বিস্তারিত।

পোস্ট অফিসের এই RD স্কিমটি আসলে কি দেখুন :-

ভারতীয় ডাক বিভাগে সামান্য কিছু টাকা ইনভেস্ট করে এই স্ক্রিম টি চালু করতে পারেন আপনিও। যেখানে ন্যূনতম ১০০ টাকা দিয়ে এই ক্রিমটি চালু করা যায়। অধিকতর জমা দেওয়ার কোন সীমা নেই। তবে এখানে ভালো সুদের পাশাপাশি পাওয়া যায় গ্যারান্টিড রিটার্ন। ফলে পোস্ট অফিসের এই স্কিমটি বেশ জনপ্রিয়।

ভারতীয় ডাক বিভাগ

কত শতাংশ সুদ পাওয়া যায় এই স্কিমে জানুন :-

ভারতীয় ডাক বিভাগের এই রেকারিং ডিপোজিট ৫ বছরের জন্য করা যায়। এর থেকে কম সময়ের জন্য যদি এই RD একাউন্ট পোস্ট অফিসে খুলতে চান তাহলে সেটা সম্ভব নয়। প্রত্যেক তিন মাস অন্তর জমা টাকার ওপর সুদ ক্যালকুলেশন করা হয়। এরপর প্রত্যেক তিন মাসের শেষে RD একাউন্টে কম্পাউন্ড ইন্টারেস্ট এর সঙ্গে যোগ করে দেওয়া হয় টাকাটি। ইন্ডিয়া পোস্ট এর বর্তমান ওয়েবসাইট অনুযায়ী এই স্ক্রিমে ৫.৮ শতাংশ সুদ পাওয়া যাচ্ছে। প্রত্যেক তিন মাস অন্তর কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে এই স্মল সেভিংস স্কিমের সুদের হার ঘোষণা করা হয়।

আপনি যদি পোস্ট অফিসের এই RD স্কিমে ১০ বছরের জন্য প্রত্যেক মাসে ১০০০০ টাকা করে ইনভেস্ট করতে পারেন, তাহলে ১০ বছর পর ম্যাচুরিটির সময় আপনিও পেয়ে যাবেন ১৬,২৪,৪৭৬ টাকা। তবে সঠিক সময়ে RD এর টাকা জমা না দিতে পারলেও আপনাকে জরিমানা দিতে হবে পোস্ট অফিস কর্তৃপক্ষকে। প্রত্যেক মাসে মূল টাকার ১শতাংশ জরিমানা হিসেবে দিতে হবে। এভাবে লাগাতার ৪টি কিস্তির টাকা না দিলে আপনার RD একাউন্ট টি সম্পূর্ণ বন্ধ হয়ে যাবে। তবে অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে গেলে আগামী ২ বছরের মধ্যে আপনি চাইলে ফের এক্টিভ করে নিতে পারবেন।