এবার আধার কার্ডের পথেই ভোটার কার্ড, আধারের মতোই ভোটারেরও ডাউনলোড করা যাবে e-EPIC কার্ড

এবার আধার কার্ডের মত ডিজিটালাইজেশনের পথে ভোটার কার্ড। আগের মত পকেটের নিয়ে ঘোরার ঝুঁকি আর থাকছে না। মাত্র কয়েকটি ধাপ অনুসরন করলেই আপনিও পেয়ে যেতে পারেন E-EPIC ভোটার কার্ডটি। সম্প্রতি নাগরিকদের E-EPIC কার্ড বানানোর জন্য উৎসাহ দিতে শুরু করেছে রাজ্য নির্বাচন দপ্তর। সোশ্যাল মিডিয়ায় চলছে ব্যাপকভাবে এর প্রচার। আসুন দেখে নিন কিভাবে আপনার E-EPIC কার্ডটি ডাউনলোড করতে পারবেন আপনিও।

১) E-EPIC কার্ডটি ডাউনলোড করতে গেলে প্রথমে আপনাকে ন্যাশনাল ভোটার সার্ভিস পোর্টাল বা https://www.nvsp.in ওয়েবসাইটটি খুলতে হবে।

2) এবার পোর্টালে রেজিস্টার বা লগইন করতে হবে আপনাকে।

৩) এরপর আপনার E-EPIC নম্বর এবং ফ্রম রেফারেন্স নম্বরটি বসাতে হবে।

৪) এরপর আপনাকে ওটিপি যাচাই করতে হবে।

আপনার রেজিস্টার মোবাইল নাম্বারে একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড পাঠানো হবে।

৫) এবার আপনি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন আপনার E-EPIC কার্ডটি।

E-EPIC কার্ডের সুবিধা গুলি জেনে নিন :-

১) এই কার্ডটি আপনার কাছে থাকলে খুব তাড়াতাড়ি ডিজিটাল ভোটার কার্ড পেয়ে যাবেন আপনিও।

২) আপনার এই ভোটার কার্ডই আর সাথে নিয়ে ঘুরতে হবে না। মোবাইল বা কম্পিউটারে থেকে যাবে আপনার ভোটার কার্ডটি।

৩) এর ফলে যখন খুশি দরকার মত যতগুলো সম্ভব প্রিন্ট আউট বের করে নিতে পারবেন আপনিও।

৪) ভোটার কার্ড হারিয়ে গেলেও এবার থেকে আর কোন চিন্তা থাকবে না।

৫) এর ফলে ভোটার আইডি কার্ড আগের মত ল্যামিনেশন করে রাখার দিন শেষ হয়ে যাবে।

৬) আপনার ভোটার কার্ডই ভাঁজ হয়ে যাওয়া বা নষ্ট হয়ে যাওয়ার কোনো ঝুঁকি এবার থেকে আর থাকবে না।

আপনারা অবশ্য জানেন আধার কার্ড তার ভার্চুয়াল ফরম্যাটের সুবিধা ইতিমধ্যেই দিতে শুরু করেছে। যেখানে ১৬ সংখ্যার একটি নম্বর দেওয়া থাকছে এই ভার্চুয়ালি আধার আইডিতে। আসুন দেখে নিন কিভাবে এই আধার কার্ড তৈরি করবেন? বা ভার্চুয়াল আধার কার্ডের গুরুত্ব টাই বা কি?

আসুন দেখে নিন ভার্চুয়াল আধার কার্ডের সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য :-

১) প্রথমত ভার্চুয়াল আধার কার্ড হলো একটি ১৬ সংখ্যার আইডি কোড।

২) আধার কার্ড না থাকলেও এই ১৬ ডিজিটের নাম্বারটি কাছে রাখলে কোন অসুবিধা হবে না।

৩) আধার কার্ডের মাধ্যমে বর্তমানে সব ধরনের ব্যাঙ্কিং পরিষেবা সুযোগ পাওয়া যায়।

৪) যদিও আধার কার্ডে লেখা থাকে এর মেয়াদ কেবল একদিনের জন্য, তবে গ্রাহক কোন ভার্চুয়ালি আইডি তৈরি না করা পর্যন্ত এর মেয়াদ শেষ হয় না।

৫) বর্তমানে আধারের ভার্চুয়াল আইডির মেয়াদকাল নেই।