জারি নির্দেশিকা, এবার থেকে সরকারি কর্মচারীদের বাধ্যতামূলক ছুটির নির্দেশ কেন্দ্রের

এবার কেন্দ্র সরকারি কর্মচারীদের বাধ্যতামূলক ছুটির নির্দেশ দিল কেন্দ্র। করোনা আতঙ্ক কিছুটা কাটতে না কাটতেই দেশের অর্থনীতিকে সচল করে তোলার লক্ষ্যে আর্থিক বিপর্যয় তথা বেকার সমস্যা সমাধানে তৎপর কেন্দ্র।  বেকার সমস্যার সমাধান এবং আর্থিক হাল  ফেরানোই এখন সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ মোদি সরকারের কাছে।  এই পরিস্থিতিতে নতুন বছরের শুরুতে একদিকে যেমন একাধিক শূন্য পদে নিয়োগের ঘোষণা করছে কেন্দ্র,  তেমনি কর্মচারীদের প্রতিও নানারকম নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে।

 

কেন্দ্র সরকারের স্থায়ী কর্মচারীদের প্রাপ্ত ছুটি সংক্রান্ত বিষয়ে একটি ঘোষণা করা হয়েছে।  এবার থেকে কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের বছরে ন্যূনতম বেতন সহ ২০ টি  ছুটি নিতে হবে।  অর্থাৎ ছুটি নেওয়া বাধ্যতামূলক করেছে সরকার। কেন্দ্র সরকার এর  বিবৃতিতে এই বিষয়ে বলা হয়েছে,  নগদ এর বিনিময়ে স্থায়ী কর্মীদের ন্যূনতম বেতন সহ ছুটি নেওয়া আবশ্যক।  এ ঘোষণার ফলে দেশের সরকারি কর্মচারীদের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে।  ২০২০ সালের অক্টোবর মাসে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার উদ্দেশ্যে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন প্যাকেজ ঘোষণা করেছিলেন।

মূলত ভোগ্যবস্তু চাহিদা এবং বিনিয়োগ বৃদ্ধির জন্য সরকারি কর্মীদের বেতন এর একাংশ LTC দেওয়ার কথা জানিয়েছিলেন নির্মলা সীতারামন। এই ব্যাপারে 73 হাজার কোটি টাকার প্যাকেজ ঘোষণা করা হয়েছিল।

টুইটারে ট্রেন্ডিং বয়কট বলিউড, সইফের বাড়ির সামনে পুলিশের নিরাপত্তা

অর্থ মন্ত্রকের তরফ এ বলা হয়েছিল নিত্য প্রয়োজনীয় নয় এমন পণ্য কেনার টাকা কর্মীদের এই টাকা   খরচ করতে হবে আগামী 31 শে মার্চের মধ্যে৷  টাকা খরচ করার শর্ত দেওয়া হয়েছিল।  এই সুযোগ নির্মালা সিতারামান বলেছিলেন বার্ষিক ভ্রমণ ভাতা হিসেবে কর্মচারীদের আয়কর বিহীন ক্যাশ ভাউচার দেওয়া হবে।  এই অর্থ দিয়ে এমন সব পণ্য কিনতে হবে যার ওপরে 12 শতাংশ বা তার বেশি হারে জিএসটি যুক্ত হয়।  কেন্দ্রের ঘোষণা অনুযায়ী ব্যবস্থা নিয়েছিলো কেন্দ্র সরকারের অধীনে থাকা সংস্থাগুলো।

এরপর কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য উৎসব ভাতার ব্যবস্থা করেন নির্মলা সীতারামন।  প্রত্যেক কর্মীকে 10000 টাকা দেওয়ার কথা হয়েছিল।  যাদের এলটিসি প্রাপ্য তাদের ভাতার উপর ধার্য কর ছাড় দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছিল কেন্দ্র এবার সরকারি কর্মচারীদের ছুটি নেওয়া আবশ্যক করা হল।