ঘুরলো সময়ের চাকা, এবার TATA কে রাজ্যে বিনিয়োগের জন্য খোদ আমন্ত্রণ জানালেন শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়

বিগত ১৩ বছর পর আজ ঘুরলো ধর্মের চাকা। এখন বাণিজ্য ও শিল্পমন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় গলায় শোনা গেল অন্য সুর। বললেন টাটা গোষ্ঠী নাকি তাদের শত্রু নয় তারা যদি শিল্পের জন্য অর্থ বিনিয়োগ করতে চান তবে করতে পারেন।

বাম আমলে সিঙ্গুরে টাটার তৈরি কারখানার জন্য আমরণ আন্দোলন চালিয়েছিলেন মমতা ব্যানার্জি। সেই আন্দোলন নিয়ে বহুবার তৃণমূল কর্তৃপক্ষকে গর্ববোধ করতে শোনা গেছিল। কিন্তু এখন ১৩ বছর পর শিল্প ও বানিজ্য মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সুরই অন্য কথা বলে। তিনি বললেন টাটা নাকি তাদের শত্রু নয় টাটা গোষ্ঠী যদি পশ্চিমবঙ্গে শিল্পের জন্য অর্থ বিনিয়োগ করতে চায় তাহলে তারা করতে পারেন। শিল্প স্থাপনের জন্য টাটাগোষ্ঠীকে তৃণমূল সরকার স্বাগত জানিয়েছে।

তবে এতো বছর পর নিজেদের দোষকে নিমেষের মধ্যে ফেলে দিলেও নেটিজেনরা কিন্তু কটাক্ষ করতে ছাড়েননি। অতুন নামের এক ইউজার লিখেছেন, ” ১৩ বছর আগে ভাবা দরকার ছিল। বাংলার মসনদে বসার জন্য রতন টাটার মতো একজন ভদ্র ও হৃদয় কাঙ্ক্ষি মানুকে অপমান। লজ্জা হ ওয়া দরকার, রতন স্যার আপনি বাংলার নর্দমায় প্রবেশ করবেন না এই অনুরোধ করি।”

তারাপদ মন্ডল লিখেছেন, “শিল্পের পরিকাঠামো ও শিল্প বান্ধবের অনুকূল পরিবেশটাই সি পি এম আর তৃণমূল উভয়েই নস‍্যাৎ করে দিয়েছে। তাই এখন নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে গা ঝাড়া দিয়ে আসরে নেমে পড়েছে। কিন্তু দুর্নীতি,আইন ও শৃংখলার ক্রম অবনতি, কাটমানি, দাদাগিরি, পাইয়ে দেওয়ার রাজনীতি যথারীতি বিরাজমান। তাই বাংলায় পট পরিবর্তন না হওয়া পযর্ন্ত টাটা গোষ্ঠীকে ততদিন অপেক্ষা করাই উচিত।”

অমূল্য দাস লিখেছেন, “অতএব মমতা ব্যানার্জি এখানে নিজের ভুলটা স্বীকার করছে না যে তিনি ভুল করেছেন তাকে খেদিয়ে এখন ১৩ বছর বাদে তাকে নিয়ে আসার জন্য মরিয়া হয়ে পড়েছে তিনি ১৩ বছরের কত বড় একটা ভুল করেছেন পশ্চিমবঙ্গ যুবকের কাজ দেয়ার নাম করে চপ শিল্প চলছে এখন বর্তমানে।”