গোটা বিশ্বকে তাক লাগিয়ে এবার ভারতের মধ্যে তৈরি হচ্ছে electric highway, মাত্র ২ ঘণ্টায় অতিক্রম হবে ২০০ কিমি পথ

দিল্লি থেকে জয়পুর পর্যন্ত দেশের প্রথম বৈদ্যুতিক হাইওয়ে (electric highway) তৈরীর ভাবনাচিন্তা শুরু করা হয়েছে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে।কেন্দ্রীয় সরকার ইতিমধ্যেই একটি বিদেশি কোম্পানির সঙ্গে বৈদ্যুতিক হাইওয়ে নির্মাণের বিষয়ে আলোচনা শুরু করে দিয়েছে। সরকারের পক্ষ থেকে দাবি এইবার মাত্র চোখের পলকে দিল্লি থেকে জয়পুর পৌঁছে যাওয়া যাবে। মাত্র দুই ঘণ্টার ব্যবধানে পৌঁছানো যাবে দিল্লি থেকে জয়পুর যা প্রায় দু’শো কিলোমিটার রাস্তা। সম্প্রতি সড়ক এবং পরিবহন মন্ত্রী নীতিন গড়করি এই বৈদ্যুতিন হাইওয়ে তৈরীর ঘোষণা করেছেন। আর এটিই হবে দেশের প্রথম বৈদ্যুতিক হাইওয়ে।এইচডি অটো রিপোর্ট অনুযায়ী এই পরিকল্পনার ফলে দিল্লি এবং জয়পুরের হাইওয়ের সম্প্রসারণ হবে।এই পরিকল্পনাটি যদি সফল হয় তাহলে পরবর্তী কালে দিল্লি এবং মুম্বাই এর মধ্যে আরও একটি বৈদ্যুতিক মহাসড়ক নির্মাণ করা হবে। এই ব্যাপারে কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে সুইডেনের একটি সংস্থার সঙ্গে আলোচনা করা হয়ে গেছে। এই বৈদ্যুতিন সড়ক নির্মাণের ক্ষেত্রে সমস্ত রকম পরিকল্পনা করা হয়ে গেছে।এই হাইওয়ে তৈরি করার জন্য ট্রেন লাইনের মতো রাস্তার উপর দিয়ে বৈদ্যুতিক তার যাবে।এছাড়া রাস্তায় গাড়ি চালানোর জন্য রেললাইনের যেরকম প্লাই থাকে সেই রকম প্লাই বানানো হবে।

এই প্লাই গুলির মধ্যে দিয়ে বিদ্যুৎ সংগ্রহ করে দ্রুত বেগে ছুটবে গাড়ি। মূলত এই হাইওয়েতে পণ্যবাহী গাড়ি, ট্রাক এবং যাত্রীবাহী বাস যাবে। মূলত বড় যানবাহন চলবে এই সড়ক পথে । এই হাইওয়েতে চলার ফলে বড় বড় যানবাহনের গতি বৃদ্ধি পাবে এছাড়া এই যানবাহন চললে পরিবেশ দূষণের পরিমাণ হ্রাস পাবে।

Advertisements

পরিবেশ দূষণ থেকে দেশকে বাঁচানোর জন্য এটি একটি সফল পরিকল্পনা হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। বৈদ্যুতিন সড়ক পথে গাড়ি চলার ফলে একদিকে যেমন পরিবেশ দূষণ কম হবে অন্যদিকে প্রাকৃতিক উপাদান পেট্রোল, ডিজেল ইত্যাদি অপব্যবহারও কমবে। এজন্য দেশে যত দ্রুত সম্ভব বৈদ্যুতিন সড়কপথ নির্মাণ করতে চাইছে কেন্দ্রীয় সরকার।

Advertisements