বাঙ্গালীদের গর্বিত করবে এই ইতিহাস, ভারতে প্রথম কোনো মহিলা নামে রয়েছে ট্রেন স্টেশন.. বাংলাতেই

বিভিন্ন মনীষীদের নাম অনুযায়ী রেলস্টেশনের নাম রাখা বরাবরই আমরা দেখে এসেছি, কিন্তু কখনো কি শুনেছেন মহিলা বিপ্লবীর নামে কোন রেলস্টেশনের নাম? জানলে হয়তো অবাক হবেন, কিন্তু সত্যি সত্যিই একজন মহিলা বিপ্লবীর নামেই রয়েছে রেলস্টেশন, তাও আবার বাংলায়।

এই গুরুত্বপূর্ণ রেল স্টেশনটি পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া, বর্ধমান কর্ড লাইনে, বেলানগর। ১৯৫৮ সালের ২৩শে নভেম্বর স্টেশনের উদ্বোধন হয়েছিল এবং স্টেশনের উদ্বোধন করেছিলেন তৎকালীন ভারতীয় রেলের উপমন্ত্রীর শাহনওয়াজ খান। শুনে খুশি হবেন যে এটাই একমাত্র একটি স্টেশন যার নাম কোন মহিলার নামে। স্বাভাবিকভাবেই এই খবরটি জানার পর আপনাদের মনে প্রশ্ন আসতে পারে যে কেন এই নারীর নামে স্টেশনের নাম হয়েছে? তাহলে আসুন এবার সেই সম্পর্কে জেনে নিই বিস্তারিত।

বেলা মিএ হলেন নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর ভাইজি,যিনি স্বাধীনতা সংগ্রামে নিজেকে নিযুক্ত করেছিলেন। বিশেষ করে তিনি কখনোই আলোর সামনে এসে প্রচার করা পছন্দ করতেন না এবং সেইজন্যে তিনি সবসময় দূরে থেকেই স্বাধীনতা সংগ্রামের জন্য লড়াই করে গেছেন। এই কারণেই তাকে সম্মান জানানোর জন্যই তাঁর নামেই রেলস্টেশনের নাম করা হয়েছে।

তবে বলে রাখা ভালো যে বেলা মিত্র কিন্তু স্বাধীনতা সংগ্রামী এবং নেতাজির ভাইজি ছাড়াও আরেকটি পরিচয়ে পরিচিত, সেটি হল রাজ্যের প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রের মা। ১৯২০ সালে মাতুলালয় ভাগলপুরে তিনি জন্মগ্রহণ করেন, এরপরে তাঁর বিয়ে হয় ২৪ পরগনা জেলার কোদালিয়া নিবাসী হরিদাস মিত্রে সঙ্গে।

১৯৩৮ সালে নিজের উদ্যোগে তৈরি করেন একটি মহিলা সমিতি, ১৯৪০ সালে যখন কংগ্রেসের রামগড় অধিবেশনের থেকে এসে নেতাজি আপস বিরোধী একটি সম্মেলনের ডাক দেন, সেই সময় সেই সম্মেলনে যোগ দিয়েছিলেন বেলা মিত্র। মাত্র ১৯ বছর বয়সে তিনি সেই সম্মেলনটির মহিলা শাখার কমান্ডারের দায়িত্ব পান। অবশেষে ১৯৯২ সালের ৩১ শে জুলাই মাত্র ৩২ বছর বয়সে তাঁর মৃত্যু হয়।