10 বছরের বাঙালি খুদের অসাধারণ প্রতিভা, ছোট কুমড়ো বীজের মধ্যে ফুটে উঠছে রবীন্দ্রনাথ নেতাজির ছবি

কিছু কিছু মানুষের জীবনে অসম্ভব বলে সত্যি বোধহয় কোনো শব্দ নেই। আমাদের আশেপাশেই প্রচুর মানুষ আছে যাদের মধ্যে অসাধারণ  গুন আছে।  নিজের প্রতিভা দিয়ে রেকর্ড গড়েছেন আবার কেউ সেই রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়ছে। এই সোশ্যাল মিডিয়ার সৌজন্যে আমরা অনেক  সুন্দর শিল্পচর্চার সাক্ষী থাকতে পারছি।

 

মাত্র তিনবছর বয়েস থেকে রঙের আচড় কাটা শুরু হয়েছিল তার। ছোট থেকে ঝোঁক ছিল আঁকার প্রতি।  আস্তে আস্তে একটু বড় হয়ে সেই ঝোঁক ভালোবাসায় বদলে গেল । রঙ তুলির টানে  একের পর এক  নতুন সৃষ্টিতে মাতলেন তিনি । নতুন কিছু করার ইচ্ছা ছিল। আর  এবার সেই ইচ্ছা পূর্নতা পেল।

বয়স মাত্র ১০ বছর।  হাওড়া মন্দিরতলার বাসিন্দা ঋতমা ধর।  নিজের শৈল্পিক প্রতিভার গুণে  ইতিমধ্যেই তিনি ইন্ডিয়ান বুক অব রেকর্ডে নাম তুলে ফেলেছেন৷ কুমড়োর বীজের উপর রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নেতাজী, এমনকি গ্রাম বাংলার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্য  ফুটিয়ে তুলেছেন। তার এই সৃষ্টি বিচারকদের মন জয় করল। ছোট্ট জিনিসের উপর ছবি আঁকার এই অদ্ভুত ক্ষমতায়  দেশের সবথেকে খুদে হিসাবে রেকর্ড গড়েছে সে।

বর্তমান কোভিড পরিস্থিতির কথা মাথায় রেখে বাংলায় ভোটের নিয়মে দশটি বড়োসড়ো পরিবর্তন

মেয়ের প্রতিভা বিকাশের জন্য  উৎসাহ দিয়েছিলেন তার মা-বাবা। ডাল চিড়ে সবকিছুর ওপর ছবি আঁকার চেষ্টা করেছিল সে। মায়ের পরামর্শেই কুমড়োর বীজের উপর ছবি আঁকা শুরু করে। রং তুলির ছোঁয়ায় ফুটিয়ে তুলতে থাকে একের পর এক অদ্ভুত ছবি। মেয়ের এই সৃষ্টি কলা তন্ময় বাবু পাঠিয়ে দেন ইন্ডিয়ান বুক অব রেকর্ডের দপ্তরে। নারী নির্যাতনের প্রেক্ষাপটে কাগজে আঁকা ছবিও পাঠিয়ে ছিলেন৷ এই ছবিগুলি এতটাই মন কেড়ে নেয়, যে বিচারকদের সর্বসম্মতিতে ঋতমা বিশেষ ভাবে সম্মানিত হয়৷  একদিন বিশ্বের দরবারে তার প্রতিভা বিকশিত হবে এই তার আশা৷