আধারের সুরক্ষা নিয়ে ফের প্রশ্ন, গুগলে এই চারটি শব্দ লিখলেই মিলে যাচ্ছে আধারের সম্পূর্ণ তথ্য..

ফের আরেকবার আধার তথ্য ফাঁসের অভিযোগ উঠল। এ নিয়ে আশঙ্কা, উদ্বেগ, নিন্দার ঝড় নানান মহল থেকে আসছে। তাই এই বিষয়টি নিয়ে চাপে রয়েছে সরকার। কারণটি হলো শুধুমাত্র গুগল সার্চ করলেই আপনি অপরিচিত কোনো ব্যক্তি আধার সংক্রান্ত তথ্য হাতে পেয়ে যাচ্ছেন। আর এতেই সমস্যায় পড়ছে নানান মানুষ। সমস্ত মানুষের এ বিষয়ে একটি প্রশ্ন, কেন নিজের আধার সংক্রান্ত তথ্য বাইরের কোনো মানুষ গুগল সার্চ করলে পেয়ে যাচ্ছেন?

তাহলে সরকার যে আধার সংক্রান্ত তথ্য নিরাপত্তায় রাখার আশ্বাস দিয়েছিল তা কি শুধু কথার কথা? সামান্য গুগল সার্চ করলেই আপনি অজানা কোন ব্যক্তির আধার সংক্রান্ত তথ্য হাতের মুঠোয় পেয়ে যাচ্ছেন। তেমনি আপনারও আধার তথ্য কোন আরেক অজানা ব্যক্তি গুগল সার্চ করে হয়তো পেয়ে যাচ্ছেন। এটি জাতীয় নিরাপত্তা এবং আপনার ব্যক্তিগত নিরাপত্তার ক্ষেত্রে খুবই বিপদজনক জিনিস।

সব দিকে অবাক করে দেওয়ার বিষয় হলো, কোনো বেআইনি ওয়েবসাইট নয় গুগল এর মত কোম্পানি একদম খুল্লামখুল্লা আধার তথ্য দিয়ে বেড়াচ্ছে।আপনাকে বেশি কষ্ট করতে হবেনা শুধু চারটি শব্দ টাইপ করে গুগলে সার্চ করুন, Mera aadhaar meri pehchan file type.pdf । এরপর আপনার সামনে পরপর পিডিএফ ফাইল চলে আসবে। যেকোনো একটিতে ক্লিক করলেই পেয়ে যাবেন  কোনো ব্যাক্তি আধার সংক্রান্ত যে কোন তথ্য।

যে সমস্ত ওয়েবসাইট ভারতীয় নাগরিকদের আধার তথ্য আপলোড করেছে তার মধ্যে কয়েকটি নাম দেওয়া হল।
1. Indian National Center for Ocean Information এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.incois.gov.in
2. All India Football Federation এর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট www.the-aiff.com
3. Starcards India নামের একটি বেসরকারি ওয়েবসাইট http:// starcardsIndia.com
তবে এই সমস্ত ওয়েবসাইটগুলি থেকে নাগরিকদের কোন বায়োমেট্রিক তথ্য পাওয়া যাচ্ছে না। যদি সেটি পাওয়া যেত তাহলে আরও সমস্যায় পড়তে হতো।

ইতিমধ্যেই টুইটারে এই বিষয়টি নিয়ে চর্চা শুরু হয়ে গেছে। আধার তথ্য এরকমভাবে প্রকাশ্যে কিভাবে আনা সম্ভব তা নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছেন সকলেই।এমনকী বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে তরফ থেকেও এই সমস্ত ওয়েবসাইটগুলোতে যোগাযোগ করা হলেও তাদের তরফ থেকে কোন সঠিক উত্তর পাওয়া যায়নি কেন তারা আধার তথ্য ওয়েবসাইটে আপলোড করেছে। আবার অনেকেরই প্রশ্ন, ইচ্ছাকৃতভাবে যদি এই সমস্ত আধার তথ্য ফাঁস করা হচ্ছে তাহলে এটি কে বা কারা কেন করছে? এ সম্পর্কে সাইবার বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, কেন্দ্রীয় সরকার এই ঘটনার দায় এড়িয়ে যেতে পারে না। কারন তারাই আধার তথ্য ফাঁস হবে না বলে কথা দিয়েছিলেন।