দেশনতুন খবরবিশেষলাইফ স্টাইল

মাত্র 48 ঘণ্টার মধ্যে করোনাভাইরাসকে খতম করতে পারে এই ওষুধ, অস্ট্রেলিয়ার বিজ্ঞানীরা বিশ্বকে দেখালো আশার আলো…

কার্যত করোনা ভাইরাস সারা বিশ্বকে গ্রাস করে ফেলেছে। যত দিন যাচ্ছে তত গভীরভাবে ছড়িয়ে পড়ছে এই মরণ ভাইরাস। এই মরণ ভাইরাসের জেরে এখনো পর্যন্ত 11 লাখেরও বেশি মানুষ আক্রান্ত হয়েছেন। এবং 60 হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন এই ভাইরাসের দরুন। সমস্ত দেশগুলি তাদের পূর্ণ প্রচেষ্টা করার পরেও এই ভাইরাসকে কেন আটকাতে পারছে না তা নিয়ে উঠছে প্রশ্ন। তার কারণ হিসেবে বিজ্ঞানীরা বলেছেন যে, এটি একটি নতুন ভাইরাস তাই দেশগুলির কাছে এখন এর টিকা নেই।

কিন্তু তবুও সমস্ত দেশের বিজ্ঞানীরা তাদের সমস্ত কিছু দিয়ে প্রচেষ্টা করছে যাতে এই ভাইরাসের টিকা বা ঔষধ আবিষ্কার করা যায়। এ নিয়ে ইতিমধ্যে আশার আলো দেখছেন অস্ট্রেলিয়ার বিজ্ঞানীরা। তাদের দাবি যে এই ভাইরাসকে মারার জন্য তারা ওষুধ আবিষ্কার করে ফেলেছেন। কিন্তু আবিষ্কার কথাটা বলতে গেলে ভুল বলা চলে। এই ওষুধটি আগেও ছিল। এই ওষুধটি হলো আন্টি প্যারাসাইড ড্রাগ। ভাই এক কথায় বলতে গেলে বলা যায় পরজীবীদের মারার ওষুধ।

অস্ট্রেলিয়ার বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন এই ওষুধ করোনাভাইরাস কে মারতেও সক্ষম। মেলবোর্নের দুই প্রতিষ্ঠান  Monash University’s Biomedicine Discovery Institute এবং Peter Doherty Institute of Infection and Immunity মিলে করোনার ওষুধ আবিষ্কারের গবেষণা চালায়।Monash University’s Biomedicine Discovery Institute-এর পক্ষ থেকে Dr.Kylie Wagstaff জানিয়েছেন যে,তারা এই অ্যান্টি প্যারাসাইড ড্রাগ নিয়ে পরীক্ষা চালান।

এরপর ফলাফল হিসেবে দেখা যায় এই ড্রাগ 84 ঘণ্টার মধ্যে করোনাভাইরাস কে মেরে দিতে সক্ষম। এবং করোনা ভাইরাসের প্রকোপ 24 ঘন্টার মধ্যে কমিয়ে দিতে সক্ষম এই ওষুধ। এই ইভারমেকটিন FDA অনুমোদিত ওষুধটি যা এইচআইভি, ডেঙ্গু, ইনফ্লুয়েঞ্জার মত রোগের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। যদিও এখনো পর্যন্ত করোনা আক্রান্ত কোন ব্যক্তির ওপর এই ড্রাগ প্রয়োগ করা হয়নি। কিন্তু তাদের এবার পরীক্ষা করে দেখতে হবে এই ঔষধটি করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির দেহে কতটা প্রভাব বিস্তার করে।

বর্তমানে করোনা যেভাবে সারা বিশ্বে প্রভাব বিস্তার করছে তাকে আটকানো খুবই জরুরি হয়ে উঠেছে। তবে বিজ্ঞানীরা বলেছেন অন্যান্য ভাইরাস এর ক্ষেত্রে এই ওষুধটি যেমন ভাবে কাজ করে এই করোনা ভাইরাস এর ক্ষেত্রেও এই ওষুধটি ঠিক তেমনভাবেই কাজ করবে। এই ওষুধটি করোনা প্রতিষেধক হিসেবে কতটা কাজ করবে তা নিয়ে এখনো চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। এ নিয়ে এখনো অনেক পরীক্ষা বাকি আছে। এখনো পর্যন্ত ক্লিনিকাল পরীক্ষাগুলি না হওয়া পর্যন্ত বিজ্ঞানীরা সঠিকভাবে বলতে পারছেন না যে এটি করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের ওপর কাজ করবে কীনা? সুতরাং আমাদের কাছে এখন অপেক্ষা করা ছাড়া আর কোন রাস্তা নেই।

Related Articles

Back to top button