দূর হল দুশ্চিন্তা! এবার থেকে নিজে না গিয়েও এই পদ্ধতিতে তুলতে পারবেন রেশন দোকানে রেশন

ভোটার আইডেন্টি কার্ড এবং আধার কার্ডের মত আরো একটি গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি সেটি হলো রেশন কার্ড। তবে তার থেকেও বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো প্রত্যেক সময়ে রেশন দোকানে গিয়ে রেশন সামগ্রী নিয়ে আসা। অনেক বাড়িতেই গৃহকর্তা অথবা গৃহকর্ত্রী বয়স্ক হওয়ার দরুন রেশন দোকানে গিয়ে রেশন নিয়ে আসতে পারেন না তারা। এমত অবস্থায় খাদ্য দপ্তর এমন একটি সিদ্ধান্ত নিয়ে এলেন, যার ফলে এক নিমেষে দুশ্চিন্তা দূর হয়ে গেল সকলের।

নতুন নির্দেশিকা অনুযায়ী,গৃহকর্তা রেশন দোকানে গিয়ে রেশন নিয়ে আসাতে অপারগ হলে প্রতিবেশীরা প্রয়োজনে রেশন সামগ্রী তুলে এনে দিতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে মেনে চলতে হবে কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম। রাজ্য খাদ্য দপ্তর উপভোক্তাদের অসুবিধার কথা মাথায় রেখে এই নিয়ম চালু করা হয়েছে। আপাতত তিন মাসের জন্য পরীক্ষামূলকভাবে এই নিয়ম চালু করা হবে।

নিয়মটি হল, রেশন কার্ডের সঙ্গে নমিনি নথিভুক্ত করা। একজন গ্রাহক তার রেশন কার্ডের সঙ্গে দুজন নমিনির নাম যুক্ত করতে পারবেন। তবে এক্ষেত্রে কিছু বাধ্যবাধকতা রেখেছেন রাজ্য খাদ্য দপ্তর। সম্প্রতি খাদ্য দপ্তরের তরফ থেকে জারি করা বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, একজন উপভোক্তা যাকে নমিনি হিসেবে যুক্ত করবেন, তার রেশন কার্ড থাকলেই হবে। অন্যদিকে নমিনি এবং উপভোক্তা দুজনকে একই রেশন দোকানের উপভোক্তা হতে হবে।

এক্ষেত্রে গ্রাহক রেশন দোকানে যেতে অক্ষম হলে গ্রাহক যাকে নমিনি হিসেবে যুক্ত করবেন তিনি গ্রাহকের রেশন সামগ্রী সংগ্রহ করে নিয়ে আসতে পারবেন রেশন দোকানে গিয়ে। তবে রেশন সামগ্রী তোলার সময় আসল গ্রাহকের মতই বায়োমেট্রিক দিয়ে যাচাইকরণের পর রেশন দেওয়া হবে তাকে।

নমিনি হিসেবে অন্য কাউকে যুক্ত করার জন্য একটি ফর্ম ফিলাপ করতে হবে প্রত্যেককে। এই ফর্মটি রাজ্য খাদ্য দপ্তরের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে পাওয়া যাবে অথবা রেশন দোকান থেকে সংগ্রহ করতে পারবেন। ১৫ নম্বর ফর্ম ফিলাপ করে জমা দেওয়ার পর আপনি অন্য কাউকে আপনার নমিনি হিসেবে নথিভূক্ত করতে পারবেন।