মহিলাদের শরীরে এই ৭ টি চিহ্নকে মনে হয় সৌভাগ্যের প্রতীক, বিয়ে করলে সংসারে বাড়ে সুখ সমৃদ্ধি

জীবনের প্রত্যেকটি পর্যায়ে মানুষ সুখী এবং স্বচ্ছল হয়ে থাকতে চায়। নারী পুরুষ উভয়ের শরীরে এমন কিছু দাগ বা চিহ্ন থাকে যা সেই ব্যক্তির ভাগ্যবান হওয়ার প্রতীক বলে মনে করা হয়। দৈহিক এবং কাঠামোগত গঠনের ভিত্তিতে সৌভাগ্যের চিহ্ন সম্পর্কে কি বলছেন জ্যোতিষশাস্ত্র চলুন জেনে নেওয়া যাক।

পায়ে তিল: কোন মহিলার যদি পায়ের তলায় ত্রিভুজ চিহ্ন থাকে তবে সেই মহিলা বুদ্ধিমতী বলে মনে করা হয়। এই ধরনের মহিলা সব সময় অন্যদের সাহায্য করার জন্য এগিয়ে আসেন।

নাভির কাছে তিল: কোন মহিলার নাভির কাছে বা পাশে কোন যদি আঁচিল বা তিল থাকে তা পরিবারের জন্য শুভ বলে মনে করা হয়। এই চিহ্নটি কেবল সেই মহিলাকে ভাগ্যবতী করে তা নয় সেই মহিলার সুখ এবং সমৃদ্ধকে নির্দেশ করে।

পায়ের আঙ্গুল: যে নারীর পায়ের আঙ্গুল লম্বা হয় সেই নারীকে জীবনে অনেক কষ্ট সহ্য করতে হয়। অন্যদিকে যে সমস্ত মহিলার বুড়ো আঙুল চাওড়া গোলাকার এবং লাল হয় সেই সমস্ত নারী ভীষণভাবে ভাগ্যবান বলে মনে করা হয়।

পায়ের পাতায় তিল: শাস্ত্র মতে যে সমস্ত নারীর পায়ের তলায় পদ্ম,শঙ্খ অথবা চক্রাকার থাকে, সেই সমস্ত মহিলারা বড় স্থান অর্জন করতে পারেন বলে মনে করা হয়।

নাকে আঁচিল: যে সমস্ত মহিলার নাকে চারপাশে তিল থাকে সেই মহিলাকে সৌভাগ্যবতী বলে মনে করা হয়। তাদের জীবনে সুখ শান্তি এবং সমৃদ্ধি থাকে বলে মনে করা হয়।

জিভের ধরন: যে সমস্ত নারীর জীবন এভাবেই নরম এবং গোলাপি রঙের হয় সেই সমস্ত নারীর জীবনে সুখী হবে বলে মনে করা হয়। এই সমস্ত নারী যে ঘরে অবস্থান করেন সেই ঘর সর্বদা আনন্দের পরিবেশে ভরে থাকে।

চোখ: হরিণের মতো সুন্দর চোখের অধিকারী যে সমস্ত নারী সেই সমস্ত নারীরা ভালোবাসা এবং সুখ নিয়ে আসেন জন্মগতভাবে। অন্যদিকে যদি কোন নারীর চোখের কোন লাল হয় তাহলে সেই নারীর ভাগ্যবতী হওয়ার লক্ষণ দেখা যায়।