শুধু সুন্দর দেখানোর জন্যই নয়! বিস্কুটের গায়ে এই ছিদ্রগুলি রাখার পেছনে রয়েছে এক বৈজ্ঞানিক রহস্য

চায়ের সঙ্গে “টা” না হলে আমাদের বাঙালিদের আবার চলে না। এই “টা” বলতে আমরা সচরাচর বুঝি বিস্কুট কে। বাড়িতে সকালবেলা অথবা সন্ধ্যেবেলা চা পান করার সময় অথবা অতিথিরা এলে তাদের চা দেওয়ার সময় আমরা সচরাচর দিয়ে থাকি বিস্কুট। ছোট শিশুদের আবদার মেটাতে সময় আমরা অনেক সময় বিস্কুট দিয়ে থাকি। এই বিস্কুট আমাদের জীবনে বহু গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু এই বিস্কুট সম্পর্কে এমন একটি ব্যাপার রয়েছে যা আমাদের কাছে আজও ছিল অজানা।

বিস্কুট খাবার সময় নিশ্চয়ই লক্ষ্য করবেন বিস্কুট এর মধ্যে থাকে অনেকগুলি ফুটো। কখনো এই চিত্রগুলি সম্পর্কে আমরা মাথা ঘামাই না। বিস্কুট খেতে কেমন অথবা কোন আকৃতির পাওয়া যাচ্ছে তা নিয়ে আমরা সবসময় চিন্তিত থাকি। কিন্তু আজ কথা বলব কেন বিস্কুটের মধ্যে ওই ছিদ্র গুলি তৈরি করা হয়। আদৌ কি কোন কারণ আছে এর পেছনে?

বিস্কুটের উপরে ওই ছিদ্রগুলিকে বলা হয় ডকিং হোল। এই এই ছিদ্রগুলি দেওয়া হয় যাতে বিস্কুট তৈরির সময় বাতাস এর মধ্যে দিয়ে চলাচল করতে পারে আর বিস্কুট যাতে বেশী না ফুলে যায়। মেশিনের সাহায্যে সমস্ত বিস্কুটে এইরকম গর্ত তৈরি করা হয়, গর্ত গুলি মেশিনের সাহায্যে তৈরি করা হয় বলে একেবারে নিখুঁত দেখতে হয়। বিস্কুট যখন মাইক্রোওভেনে তৈরি করা হয় তখন বিস্কুট গরম হয়ে ফুলে ওঠে কিন্তু এই চিত্রগুলি থাকার কারণে বিস্কুট গুলি বেশি ফুলে ওঠে না এবং আকৃতি একেবারে সঠিক ভাবে তৈরি হয়।

হাইটেক মেশিনের সাহায্যে, বিস্কুটগুলি সমানভাবে এবং সমান ব্যবধানে তৈরি করা হয়। এই প্রকার মেশিনের সাহায্যে সমান আকৃতির হাজার হাজার বিস্কুট তৈরি করা হয় এবং আমরা আনন্দের সহিত সেই বিস্কুট গ্রহণ করি।